গনহত্যা, জম্মভূমীর অধিকার ছিনিয়ে নেয়া, মানুষ হয়ে মানুষের উপর অত্যাচার- মহাপাপ। ঈশ্বরের কাছে এই পাপের কোন ক্ষমা নেই। একদিন না একদিন এই পাপের ফল হত্যাকারী অসুররা পাবেই।

১৭ কোটি মানুষে ওই ৫ লক্ষ মানুষ যুক্ত হলে আমাদের ভাত কাপরে টান পরবে না ঠিক, টান পরবে জাতীয়তাবাদে, সংস্কৃতিতে, যুব সমাজের মননে, শরীরে, মেধায়। অসাম্প্রদায়ীক, শান্তিপ্রিয়, উৎসব অভিলাষী বাংগালী মানসীকতার সাথে উগ্রবাদী, অসাংস্কৃতিক, মাদক পাচারকারী মানসীকতা কখনোই খাপ খাবে না।

এরা আর ফিরতে পারবে এমন বিশ্বাস খোদ ওরাই করে না। অনেক দেশ মায়াকান্না কাঁদলেও কেউ আশ্রয় দেবার কথা বলছে না। এদের ভার অনন্তকালের জন্য আমাদের ঘাড়েই চেপেছে।

যথারীতি আমাদের সেবকগন ত্রান বিতরনকারীরা বন্যাটন্যা ফেলে এখন রহিংগা এসাইনম্যন্ট হাতে নিয়ে নিয়েছেন। মিডিয়া কাভারেজ যেখানে বেশি, সংগঠন সেখানেই এংকর করতে হয়। কিন্তু বড়জোর তিন মাস। তারপর এদের কি হবে একটু ভাবুন।

অন্ন বস্ত্র বাসস্থান চিকিৎসা শিক্ষা, – মৌলিক অধিকার ভিত্তিক ত্রান ব্যবস্থাপনা নিশ্চিত করুন। ত্রান সামগ্রী নয়ছয় করে পাপের ভাগীদার হবেন না।

সর্বোপরি এই সংকট নিরসনে সরকার কে সর্বাত্মক সহযোগীতা করুন।

প্রবাল ঘোষ।