গুলশান হামলার অন্যতম ঘাতক নিবরাসের বাবা বলেছেন, আগে তার ছেলেকে শুক্রবার মসজিদে নামাজ পড়তে জোর করে নিতে হতো। কিন্তু মালয়েশিয়া থেকে ফেরার পরই নিরবাস ৫ ওয়াক্ত নামাজ নিজ থেকে পড়া শুরু করে। তবু ভদ্রলোক এখনো নিজেকে প্রশ্ন করে যাচ্ছেন, কেন তার ছেলে জঙ্গি হয়েছিল?

নিবরাসের বাবা বলেন, ‘আমার ছেলেটার তো এমন পরিণতি হওয়ার কথা ছিল না। আমি ছেলেকে সময় দেওয়ার জন্য ব্যবসা গুটিয়ে এনেছিলাম। দিনের পর দিন ছেলেকে নিজে মাঠে নিয়ে ফুটবল খেলেয়েছি। ছেলের জন্য পুরান ঢাকার বাসা ছেড়ে উত্তরা এসেছি। ছেলের সঙ্গে বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্ক ছিল আমার। এত ভালোভাবে যত্ন নিয়ে মানুষ করাই কি কাল হলো?’

এই ভুল কবে সব মুসলিম বাবাদের ভাঙ্গবে? নিরবাস তো গুলশান হলি আর্টিজানে ডাকাতি করতে যায়নি। সে বখে যায়নি। আগে সে রেডিসনে ইন্ডিয়ান মডেলদের সঙ্গে নাচত। নামাজ পড়তে চাইত না অর্থ্যাৎ ধর্মে মতি ছিল না। পরে সে নামাজি হয়েছিল এবং হলি আর্টিজানে জিহাদ ফি সাবিলিল্লাহ সংগঠিত করতে হামলা চালিয়েছিল। সে ব্যাংক ডাকাতি করতে যায়নি। এমনকি এই হামলায় তার নিশ্চিত মৃত্যু (কিতাল ফি সাবিলিল্লাহ) জেনেও অংশগ্রহণ করেছিল। কিসের আশায়? জান্নাত! নিরবাস বিনা হিসেবে জান্নাত পেতে চাইছিল…।

নিবরাসের বাবা কাঁদতে কাঁদতে বলেন, কারা ছেলেটার ব্রেনওয়াশ করে ভুলপথে নিয়ে গেলো? তাদের শাস্তি হবে না?’

ব্রেনওয়াশ? আল তাবারি, ইমাম বুখারী, ইবনে কাথির, ইমাম গাজ্জালী, ইবনে ইসহাকসহ ইসলামের প্রথম যুগের এইসব পন্ডিতরা তাহলে ব্রেনওয়াশ হয়েছিলেন কার হাতে? তরবারীর ছায়াতলেই বেহেস্ত- এরকম কথা যে বইতে লেখা থাকে সেসব বই মুসলিম পরিবারে পবিত্র জ্ঞান করে চুমু খাওয়া হয়। ধর্ম শিক্ষার নাম করে স্কুলে পাঠ্য করা হয়। নিরবাসকে ব্রেনওয়াশ করেছিল জাকির নায়েক? জসিমউদ্দিন রাহমানি? তামিম চৌধুরী? তারা কেউ নিজে থেকে বানিয়ে জিহাদ প্রচার করেছিলো? নিরবাসের বাবা তার পুত্রকে হারিয়েছেন। তিনি কি কষ্ট করে এবার ইসলামের যাবতীয় হাদিস গ্রন্থগুলো পড়া শুরু করতে পারেন? আরো যত বাবারা আছেন তারা কি কষ্ট করে, এই ইন্টারনেটের যুগে সহজে হাদিস গ্রন্থগুলো ডাউনলোড করে পড়া শুরু করতে পারেন না? আপনাদের সন্তান আগামীদিনের নিরবাস হচ্ছে কিনা কি করে বুঝতে পারবেন? ছেলেমেয়ে ধর্মকর্ম পালনে মনোযোগী হয়ে উঠলে আপনি স্বস্তির নিঃশ্বাস ফেলেন। যা দিনকাল পড়েছে- তাতে সন্তানদের মনে আল্লার ভীতি এসেছে মানে সে বিপথে আর যাবে না। খারাপ পাড়ায় যাবে না। মাদক নিবে না। জুয়া খেলবে না। … আপনি নিশ্চিন্ত! কিন্তু এই সব কটা বাদ দিয়ে সে যদি আরেকটা হলি আর্টিজানের নায়ক হয়ে উঠে- কি বলবেন তখন নিজেকে? কষ্ট করে একবার ইসলামকে জানার চেষ্টা করুন। কে কাদের ব্রেনওয়াশ করছে জানুন…।

গুলশান হামলার মাত্র ৩ দিন আগে নিবরাস তার বোনকে ম্যাসেজ লিখেছিলো, শিরক করবা না। বেশি বেশি তওবা করবা। আমার মতো হিযরত করো। বাবা-মাকে বলো আমার কথা না শুনলে আমার স্যাক্রিফাইস বৃথা হবে।‘

শিরক করতে না বলা কি ইসলামে নেই? তওবা, হিযরত এসব ধারণা কোথা থেকে এলো? ছেলে ৫ ওয়াক্ত নামাজি হয়েছে আর শিরক, হিযরত চিনবে না তা কেমন করে হয়! জঙ্গি জঙ্গি করে এবার চিল্লাচিল্লি বাদ দিয়ে জিহাদী বলতে শিখুন। দেখবেন হিসাব পরিস্কার মিলে যাচ্ছে। পৃথিবীর প্রথম জিহাদী দলটা বাণিজ্য কাফেলায় হামলা করেছিল আজ থেকে ১৪০০ বছর আগে। এখান থেকেই শুরু হোক আপনাদের ইসলামী জিজ্ঞাসা…।
লেখক,
হামিদ আলোম।