#চণ্ডীপুর_মহিলা_ফুটবল_কাণ্ডে মৌলবাদীদের চরমবার্তা #অনিতা_রায়ের —-
   ”খেলোয়াড় জীবনের ৩৫ বছর যাবৎ মাঠে গড়াগড়ি খাচ্ছি । ভারতের অধিনায়ক হিসাবে বাংলাদেশ মালয়েশিয়া ইন্দোনেশিয়া সহ অনেক জায়গায় আমার মেয়েদের নিয়ে খেলতে গেছি।   সেই জায়গায় দাঁড়িয়ে আমি ভাবতে পারি না আমার মাতৃভূমিতে আমার মেয়েরা খেলতে পারবে না !! 
নারী দিবসের প্রাক্বালে যখন আমি বিদেশে তখন আমাকে জানানো হল মালদার চণ্ডীপুরে একটি মহিলা ফুটবল খেলার দলের আয়োজন করতে হবে । জাতীয় আন্তর্জাতিক এবং দেশের সেরা মহিলা খেলোয়াড়দের নিয়ে সেরা দল গঠন করে প্রস্তুত হয়েও কলকাতা থেকে মালদায় যাওয়ার মুহূর্তে এক আকস্মিক দুঃসংবাদ এল সেখানে মেয়েদের ফুটবল খেলতে দেওয়া হবে না । এই ঘটনা সারা দেশের মিডিয়াতে আলোড়ন সৃষ্টি করলো এবং ফিফাতেও এই ঘটনার বিস্তারিত  রিপোর্ট আমার কাছে চেয়ে পাঠান হল ।
  বিদেশে বহু জায়গায় খেলতে গেছি সেখানে কিন্তু মেয়েরা মানুষ হিসেবেই খেলাধুলা করে ।   আমরা দাবী করি নারী স্বাধীনতার কথা ! কিসের স্বাধীনতা ! ভারতে স্বাধীনতার ৬৭ বছর পরেও এত সংরক্ষণ দিয়েও আমরা নারীরা আসলে কিছুই আদায় করতে পারিনি । আজও আমরা  কত অসহায় কত পরাধীন !!
স্বাধীনতার ৬৭ বছর পরেও  ধর্মকে নিয়ে ব্যেবসা হচ্ছে ! হ্যাঁ ,আমি বলি এসব ধর্ম নিয়ে ব্যেবসা ! মৌলবাদ ?  কিসের এত বাদ বা বাদী ? কিসের জন্য বাদ আর বাদী  ? তারা কি অর্জন করতে চায় ?
সবাই কে বলবো রুখে দাঁড়ান । বাদ এবং বাদীরা কিন্তু সংখ্যায় খুব কম হয় । আসুন সবাই মিলে তাদের ধাক্কা দিই ।
বাদ আর বাদীদের বলছি  সেই দিনটা কিন্তু  খুব সামনে , সূর্য কিন্তু ঊঠে আসছে  সেদিন চরম উত্তর আমরা দেব , আর তার মধ্যে নিশ্চিত ভাবে আমি একজন থাকবো । বি কেয়ারফুল … সেদিনটা কিন্তু খুব সামনেই …… ”
( #অনিতা_রায় : ভারতীয় মহিলা বাস্কেটবল দলের প্রাক্তন অধিনায়ক, অল ইণ্ডীয়া রেডিয়োর ক্রীড়া ধারাভাষ্যকার,ক্রীড়াপ্রশিক্ষক, নারী নির্যাতন বিরোধী আন্তর্জাতিক কমিটির সদস্য । 
২৪ জুন ২০১৫ কলকাতায় আন্তর্জাতিক মানবাধিকার সংগঠন পেন আয়োজিত ‘মৌলবাদ বনাম মুক্ত চিন্তা ‘ বিষয়ক প্রতীবাদ সভায় তাঁর বক্তব্যের নির্বাচিত অংশ । )