ইসলামের তথাকথিত স্তম্ভসমূহ, ভিন্ন দৃষ্টিতে

নামাজ : মুসলমানদের কাছে নামাজ হচ্ছে পৌত্তলিক বাধ্যবাধকতা। এরা এটাকে পূজায় রূপান্তর করেছে। – ডাঃ লুৎফর রহমান।
অল্প নামাজ কিছুটা ব্যায়ামের কাজ দেয়। কিন্তু প্রতিটি ব্যায়ামের বই বলছে, দীর্ঘদিন একই ভঙ্গিতে ব্যায়াম শরীরের জন্য মারাত্মক ক্ষতিকর। হাড়ের ক্ষয় এবং বৃদ্ধি, গ্লুকোমা এবং উচ্চ রক্তচাপ দীর্ঘদিন একই ভঙ্গিতে নামাজের কারণ। অতিরিক্ত অজুর কারণে হতে পারে সাইনুসাইটিস এবং শূচীবায়ুগ্রস্ততা।
আর ফরজ নামাজ কোন প্রার্থনাই নয়, এটা এক অদ্ভুত নির্যাতন।” তুমি আমার কাছে প্রার্থনা করতে বাধ্য “, এটা চরম মূর্খতাপূর্ণ ভাবনা।

রোজা : উপবাস কখনো কখনো উপকারী। কিন্তু সারাদিন নিজেকে পানিশূন্যতায় রাখা, রাতে ভূরিভোজ করা, টানা তিরিশ দিন একই প্র্যাকটিস করা বোকামি,  অস্বাস্থ্যকর এবং  চরম হাস্যকর।
আর সকাল বেলা এতএত খেয়ে আবার সন্ধ্যাবেলা এতএত খাওয়া, এটা সংযম? উপবাস? না ভোগবিলাস?

হজ্ব : হাস্যকর পৌত্তলিকতা। হাস্যকর আচরণ।হাস্যকর দৌড়াদৌড়ি।  কালো পাথরে চুমু খাওয়া,  শয়তানকে পাথর মারা, কাবা মন্দির প্রদক্ষিণ করা এইসব এক ধরনের মূর্তিপূজা।

ঈমান : ঈমান নিঃশর্ত অন্ধবিশ্বাস। যে যত যুক্তিহীন অন্ধবিশ্বাসী সে তত অসুস্থ এবং অপ্রকৃতিস্থ। – মেডিকেল সাইন্স।

যাকাত : যাকাত হচ্ছে এক ধরনের ব্যক্তিগত অনুগ্রহ। যা মানুষের মনকে ক্ষুদ্র ও ক্ষুণ্ন করে। মানবতাকে হেয় করে। গরীবকে ভিক্ষাবৃত্তিতে অভ্যস্ত করে তোলে। এটা অমানবিক, অসভ্যতা।