Home Bangla Blog মাছ চাষে কেন হলুদের ব্যবহার করা হয়??

মাছ চাষে কেন হলুদের ব্যবহার করা হয়??

211
মাছ চাষে হলুদের ব্যবহার!!!
(লিখেছেনঃসালাহ উদ্দিন সরকার তপন)
হলুদ বা হলদি (বৈজ্ঞানিক নাম: Curcuma longa) হলো হলুদ গাছের শিকড় থেকে প্রাপ্ত এক প্রকারের মসলা, ভারত, বাংলাদেশ এবং পৃথিবীর বিভিন্ন দেশের রান্নায় এটি ব্যাপকভাবে ব্যবহৃত হয়। এটি আদা পরিবারের (Zingiberaceae) অন্তর্গত একটি গুল্মজাতীয় উদ্ভিদ।


হলুদ গাছের আদি উৎস দক্ষিণ এশিয়া। এটি ২০ থেকে ৩০ ডিগ্রি সেলসিয়াস তাপমাত্রার মধ্যে জন্মে থাকে। হলুদ গাছের জন্য প্রচুর পরিমাণে বৃষ্টিপাতের দরকার হয়। বছরে সাধারণত একবার হলুদ গাছের শিকড় তোলা হয়। পরের বছর পুরানো শিকড় থেকে নতুন গাছ গজায়।
অনেকেই আমরা জানি হলুদ এ্যান্টিসেপটিক হিসাবে কাজ করে। যুগ যুগ ধরে গ্রামীন বাংলা ছাড়াও দক্ষিন এশিয়ার বিভিন্ন দেশে এটি একটি প্রদাহ-নাশক ঔষধী হিসাবে ব্যবহৃত হয়ে আসছে। রন্ধন প্রক্রিয়ায় হলুদ ব্যবহার করা হয় মূলত খাবারের মধ্যেকার জীবানুগুলোকে ধ্বংশ করার জন্য। সাম্প্রতিক গবেষেনায় দেখা গেছে হলুদে ‘কারকিউমিন’ নামক একটি বায়ো-এক্টিভ যৌগ আছে, যা অগ্নাশয়ের(পেনক্রিয়েটিক) ক্যান্সার, আলজাইমার রোগ, কলোরেক্টাল ক্যান্সার, স্তন ক্যান্সার, লিউকমিয়া প্রতিরোধে খুবই কার্যকর। হলুদ এমন একটি ঔষধী মশলা যা লিভারের বিষক্রিয়া প্রতিহত করায় সবচেয়ে কার্যকর প্রাকৃতিক উপাদান।
আমরা মাছ চাষিরা হতাশ হওয়ার কিছু নেই, মাছ চাষেও হলুদের ব্যবহার হতে পারে, নিম্নে সংক্ষেপে মাছ চাষে হলুদের মাধ্যমে রোগ নিরাময়ে প্রয়োগ ও ব্যবহার তুলে ধরা হলো-
১. হলুদ এন্টিসেপ্টিকের কাজ করে। পরিমিত মাত্রায় মাছের খাবারের সাথে পর পর ৫-৭ দিন হলুদ খাওয়ালে মাছের ক্ষত রোগ দ্রুত সেরে উঠতে সহায়তা করে।
২. হলুদ ক্রিমি নাশ করে। হলুদের এক নাম ক্রিমিনাশকারী। সকালে মাছের খালি পেটে খাবারের সাথে পরিমিত মাত্রায় হলুদের রস মিশিয়ে পর পর ৩ দিন খাওয়ালে ক্রিমি নাশ করে,
৩. হলুদ মাছের পাচনতন্ত্র ও মুখে অনেক পরজীবীর বাস থেকে রক্ষা পেতে ও মাছের নানাবিধ চর্ম রোগ থেকে রক্ষা করে
৪. মাছের লিভার বা যকৃতের দোষে কাঁচা হলুদের রস পর পর ৭ – ১০ দিন খাওয়ালে ভাল ফল পাওয়া যায়
৫. পুকুরের জোঁক নিধনে হলুদ ব্যবহার হতে পারে ।
৬. হলুদের মধ্যে প্রোটিন, ভিটামিন, খনিজ লবণ, ফসফরাস, ক্যালসিয়াম, লোহা প্রভৃতি নানা পদার্থ রয়েছে। তাই হলুদ মাছের খাদ্যের সাথে পরিমিত মাত্রায় সপ্তাহে ২ দিন ১০০ কেজি খাদ্যের সাথে ৫০ গ্রাম হলুদ উত্তম রুপে মিশিয়ে খাওয়ালে মাছের শরীরে রোগ প্রতিরোধের ক্ষমতা বৃদ্ধি পায়।
৭. মাছের দেহে রক্তের ঘাটতি বা রক্ত শুন্যতা দেখা দিলে হলুদ বাটা সপ্তাহে ২ দিন ১০০ কেজি খাদ্যের সাথে ৫০ গ্রাম হলুদ উত্তম রুপে মিশিয়ে খাওয়ালে উপকার মিলবে, কেননা এটি রক্ত তৈরিতে সাহায্য করে।
৮. হলুদ মাছের হার গঠনে গুরুত্বপূর্ণ ভুমিকা রাখতে পারে
৯. হলুদ শ্রেষ্ঠ রক্ত পরিস্কারক
বি: দ্র : একাধারে দীর্ঘদিন কাঁচা হলুদ মাছকে খাওয়ানো উচিত নয়, মাঝে মধ্যে বিরতি দিতে হবে। পরিমাণমতো হলুদ খাওয়াতে হবে। অতিরিক্ত হলুদ মাছের স্বাস্থ্যের জন্য ভালো নয়।

সালাউদ্দিন সরকার তপন
%d bloggers like this: