Home Bangla Blog ইসলামিক জনসংখ্যাতত্ত্বের গতিতে পরাভূত হিন্দু ~ উপানন্দ ব্রহ্মচারী

ইসলামিক জনসংখ্যাতত্ত্বের গতিতে পরাভূত হিন্দু ~ উপানন্দ ব্রহ্মচারী

197

ইসলামিক জনসংখ্যাতত্ত্বের গতিতে পরাভূত হিন্দু
~ উপানন্দ ব্রহ্মচারী

সরকারী ভাবে প্রকাশিত ভারতের জনগননা রিপোর্ট ২০১১ (ধর্মীয় পরিসংখ্যান ) হাতে পেয়ে যারা মুসলমান বৃদ্ধি মাত্র ০.৮% বলে গলা ফাটাচ্ছেন, তারা কিছু ভয়ংকর তথ্য গোপন করতে চাইছেন ।

১. রিপোর্ট অনুযায়ী  ২০০১-২০১১ দশকে হিন্দুর বৃদ্ধির হার যেখানে ১৬.৮%, সেখানে মুসলমানদের বৃদ্ধির হার ২৪.৬% । অর্থাৎ এই বিচার্য্য দশকে মুসলমানরা হিন্দুর থেকে প্রায় ৮ শতাংশ বেশি হারে বেড়েছে ।

২. স্বাধীনতার পর প্রথম জনগননার  (১৯৫১) সময় দেশে হিন্দুর সংখ্যা ৩০.৩৫ কোটি আর ২০১১ জনগননা অনুযায়ী  ৯৬.৬২ কোটি । আর  প্রথম জনগননার  (১৯৫১) সময় দেশে মুসলমানের  সংখ্যা  ৩.৫৪ কোটি আর ২০১১ জনগননা পরিপ্রেক্ষিতে  ২২.২২  কোটি । অর্থাৎ স্বাধীনতার পর থেকে আজ পর্যন্ত হিন্দু যেখানে বেড়েছে ৩ গুনের কিছু বেশী, সেখানে মুসলমানেরা বেড়েছে ৬ গুনের কিছু  বেশি । অর্থাৎ মুসলমানেরা  হিন্দুর তুলনায় দ্বিগুনের বেশি হারে বাড়ছে ।

১৯৫১ (হিন্দু ) ৩০.৩৫ কোটি   (মুসলমান) ৩.৫৪ কোটি
১৯৬১ (হিন্দু ) ৩৬.৬৫ কোটি  (মুসলমান) ৪.৬৯ কোটি
১৯৭১  (হিন্দু ) ৪৫.৩৩ কোটি   (মুসলমান) ৬.১৪ কোটি
১৯৮১ (হিন্দু ) ৫৬.২৪ কোটি    (মুসলমান) ৮.০৩ কোটি
১৯৯১ (হিন্দু ) ৬৯.০১ কোটি    (মুসলমান) ১০.৬৭ কোটি
২০০১  (হিন্দু ) ৮২.৭৬ কোটি   (মুসলমান) ১৩.৮২ কোটি
২০১১  (হিন্দু ) ৯৬.৬২ কোটি   (মুসলমান) ১৭.২২  কোটি  + ৫ কোটি অবৈধ বাংলাদেশী ও রোহিঙ্গা মুসলমান = মোট ২২.২২ কোটি (মুসলমান) ।

৩. খালি চোখে ভারত জুড়ে টুপি-দাড়ি, বোরখা, ইসলামী জলসা, বড় বড় ইসলামী মাদ্রাসা-বিশ্ববিদ্যালয়, বড় বড় ইসলামী বানিজ্য প্রতিষ্ঠান, হাসপাতাল,  ইসলামিক ব্যাঙ্ক, চোখ ধাঁধানো পেল্লায় মসজিদ-মিনার, আই এস আই এস এর পতাকা প্রদর্শন, ইসলামী রাজনীতি আর সংখ্যালঘু তোষনের বাড়-বাড়ন্ত দেখেও যারা সম্প্রীতি আর সহবস্থানের খোয়াব দেখেন, তারা ভারতে আবার নতুন করে পাকিস্তান গড়ে তোলার চক্রান্তে সামিল হয়েছেন ।

এই ব্যাপক মুসলমান জনসংখ্যা বৃদ্ধি নিম্নে উল্লিখিত মিনি পাকিস্তান গুলির অস্ত্বিত্ত্বের সহায়ক হয়েছে ।
ক. সারা দেশে ৫৩ টি মুসলমান অধ্যুষিত জেলা ।
খ. ১৫ টি মুসলমান অধ্যুষিত লোকসভা, আরো ২০ টি উচ্চ মুসলিম প্রভাবিত ।
গ. ৩৫০ টি সমষ্টি উন্নয়ন ক্ষেত্রে (ব্লকে) মুসলমানরা সংখ্যা গরিষ্ট । বেশির  ভাগ সাম্প্রদায়িক দাঙ্গা-হাঙ্গামা এই সব ব্লকেই সংগঠিত হয় । 
ঘ. ভারতে ১৬০০০০ গ্রামীন জনপদ ও শহুরে এলাকায় নিয়ন্ত্রকের ভূমিকায় থাকে কট্টর পন্থী মুসলমানরা ।
ঙ. অবৈধ হাতিয়ার ব্যবসা , নকল মুদ্রা ও মাদকের ব্যবসা, মানুষ ও গরু পাচার, দেশ বিরোধী চক্রান্তের কেন্দ্র বিন্দুও এইসব মুসলমান  অধ্যুষিত এলাকা ।

প্রতিকার :
১. হিন্দু জনসংখ্যা বৃদ্ধি, অলীক পরিবার নিয়ন্ত্রণ রোধ আর সময়ে বিবাহাদি ।
২. লাভ জিহাদ ও ধর্মান্তরণ রোধ । পরাবর্তন -ঘরওয়াপসীর উপর বিশেষ জোর প্রদান । 
৩. জাতিভেদ প্রথার বাস্তব অবলোপ ভিত্তিতে বৃহৎ হিন্দু সমাজে সর্ববর্ণ বিবাহাদি প্রচলন ।
৪. আত্মরক্ষা ও সমাজ রক্ষায় সক্ষম জ্ঞানী ও শক্তিশালী হিন্দু সমাজ নির্মান ।
৫. হিন্দু কোড  বিলের অবলুপ্তি তথা মুসলমানদের  বহু বিবাহ ও দুটির বেশি সন্তান উত্পাদনের উপর প্রতিবন্ধ মূলক আন্দোলন ।

%d bloggers like this: