ধরুন শ্যামাপ্রসাদ মুখার্জী জন্মাননি।

Spread the love

ধরুন শ্যামাপ্রসাদ মুখার্জী জন্মাননি। আমরা অবিভক্ত বাংশাদেশের নাগরিক হয়ছি। তাহলে কি হতো?
● হিন্দুর সংখ্যা থাকার কথা ছিল ৩৪%, মুসলিম ৬৬% প্রায়। অবধারিত ভাবে প্রধানমন্ত্রী মুসলিম হতো। স্বাধীনতা পূর্ববর্তী সময়ে যে তিনজন যুক্তবঙ্গের প্রধানমন্ত্রী হয়েছিলেন সবাই মুসলিম।
● প্রথম দিকে কয়েকটি মন্ত্রীত্ব হিন্দুদের দেওয়া হতো। সময়ের সাথে সাথে তার অনুপাত কমত। এখন বাংলাদেশে কোনো হিন্দু ক্যাবিনেট মন্ত্রী নেই।
● হিন্দুর সংখ্যা কমতে থাকত। আজ হয়ত ১২%-১৪% হিন্দু থাকত যুক্তবঙ্গে। স্বাধীনতার সময় বাংলাদেশে হিন্দু ছিল ২৪% প্রায়। বর্তমানে তা কমতে কমতে ৮% আন্দাজ হয়েছে।
● সংখ্যালঘু উন্নয়ন দপ্তর বলে কিছু থাকত না। কোনো মুসলিম দেশে তা নেই।
● ঝাড়খন্ড ওড়িশা সহ ভারতে বাংলাদেশ থেকে বিতাড়িত হিন্দুরা বাঙালী উপনিবেশ গড়ে তুলত।
● এখন যেমন হচ্ছে, তেমনি বাংলাদেশ আস্তে আস্তে একটি জঙ্গীরাষ্ট্রে পরিনত হতো। শুধু বর্তমানের থেকে তার আয়তন বড় হতো।
● বাংলাদেশীরা চিকিৎসার জন্য এখনকার মতোই ভারতে আসত। শুধু কলকাতার বদলে গন্তব্য হতো জামসেদপুর বা কটক বা পাটনা, তারসাথে চেন্নাই মুম্বই থাকত এখনকার মতো।
● পাঠ্যপুস্তক থেকে রবীন্দ্রনাথ, শরৎচন্দ্র বিদায় নিতেন।
● স্কুলে পুজোর ছুটি বলে কিছু থাকত না।
● কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয়, যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয় ইত্যাদি বড়বড় মাদ্রাসায় পরিনত হতো। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় এখন একটি মাদ্রাসা ছাড়া অন্য কিছু নয়।
● কমিউনিষ্ট নেতারা ঝাড়খন্ড/ওডিশায় গিয়ে মুসলিমদের অধিকার নিয়ে আন্দোলন করতেন।
● মাননীয়া গিরিডি মিউনিসিপ্যালিটির ১৩ নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর হতেন।
.
সুপ্রিয় সুপ্রিয় ব্যানার্জী