“কাফিরিস্তান”— আফগানিস্তানের এক প্রদেশ ,বর্তমান নাম “নুরীস্তান”……………….।।।

Spread the love

আফগানিস্তানের সাম্প্রতিক ইতিহাস জানতে হলে
কাফিরিস্তানযার বর্তমান নাম
নুরীস্তানসম্বন্ধে একটু জ্ঞান থাকে
দরকার।নুরীস্তান আফগানিস্তানের একটি প্রদেশ। এর
নাম ছিলোকাফিরিস্তান”, খুব
বেশী দিন আগের কথা
নয়। আফগানিস্তানজিহাদীদের কবলে যাওয়ার
আগে ওরা এই অঞ্চল
টাকেকাফিরিস্তানবলেই নাম দিয়েছিলো।
এর একটিই কারন, সেটা
হলো ওখানে যারা বাস
করতো তারাইসলামে অবিশ্বাসীকাফের।আলিঙ্গর, কামহা, লান্দাই সিন
, কুনার নদীর অববাহিকা অঞ্চল
এবং পার্শ্ববর্তি

পর্বতমালা নিয়ে অপরুপ সৌন্দর্য্যময়ী
উর্বর ভুমি এই কাফিরিস্তান।
এর উত্তরে হিন্দুকুশ পর্বতমালা,
পুর্ব দিকে চিত্রল (পাকিস্তানে),
দক্ষিনে কুনার উপত্যকা এবং
পশ্চিমে আলিসাং (আলিঙ্গর) নদী। জিহাদীরা পার্শ্ববর্তী
অঞ্চলে দখল করার পর
সেখানকার সমস্ত বসবাস কারীদের
ধর্ম পরিবর্তন করেইসলামধর্ম
মেনে নিতে বাধ্য করে।
তার পর থেকে সেই
ইসলামীরা হিন্দু অধুষিত
এই অঞ্চলকে বলতে শুরু করে
কাফিরিস্তান

নবীর মৃত্যুর পরইরান’ (পারসীয়া)
দখল হয়ে যায় মাত্র
বছরের মধ্যে। প্রাচীন
এক সংষ্কৃতি এবং জরথ্রুষ্টিয়ান প্রচারিত
ধর্ম বিলুপ্ত হয়ে যায়জিহাদী
দেরশান্তির ধর্মএর প্রকোপে।
প্রান ভয়ে শিক্ষিত, মার্জিত,
সুসভ্য পারসীরা বাধ্য হলো এক
বর্বর , নৃশংষ আরবী বেদুইন
জাত জাতি এবং তাদের
মানব সভ্যতা পরিপন্থী বিকৃত
ধর্ম এবং রাজনৈতিক উদ্দেশ্যের
কাছে তাদের হাজার বছরের
প্রাচীন সংষ্কৃতি, ভাষা, দৈনিন্দিন জীবন
যাত্রা প্রনালী বিসর্জন দিতে। কিছু পারসীরা
পালিয়ে বাঁচলো পুর্ব দিকে
এসে আমাদের ভারতবর্ষে। সেই
উদ্ববাস্তু পারসিক রা জামসেদজী
টাটা, গোদরেজ ইত্যাদি নামে
পরিচিত। আর কিছু মানুষ
যারাবাহাউল্লারনির্দেশিত পথ ধরে চলার
চেষ্টা করলো, তাদের
প্রান ভয়ে ছড়িয়ে পড়তে
হলোবাহাইনাম নিয়ে
সারা পৃথিবীতে।

জিহাদী দের, অপরের দেশ
দখল করার লালষা থেমে
গেলোসিন্ধু রাজ দাহির
কে শেষ করতে এসে।
আরবী জিহাদী রা ভারতে
প্রবেশ করার চিন্তা ছেড়ে
দিলো। নজর পড়লো অন্য
দিকে। পরের ৩০০ বছর
আর কেউ ভারতবর্ষের দিকে
তাকানোর সাহস পায়নি। রাজা
দাহির, তার রানি এবং
দুই কন্যার জ্বালা আরবী
জিহাদী দস্যুরা আর
কোনোদিন ভুলতে পারেনি। যাদের
হাতে পরবর্তিজিহাদী তান্ডবএর
ঝান্ডা এসে গেলো তারা
কেউ আরবী নয়।
সবাই বর্তমান আফগানিস্তান এবং সেন্ট্রাল এশিয়ার
দেশের বাসিন্দা, যারা কালের ইতিহাসে
যা একদা ছিলোতক্ষক
দেশনামে পরিচিত অঞ্চলের
হিন্দু ধর্মাবলম্বী মানুষ ,কিন্তু হতে
হলো আরবীদের দাস (তুর্কী দাস)
এবং ঘোর হিন্দু বিরোধী।

কাফিরিস্তান এমনই এক জায়গা,
যেখানকার হিন্দুদের মাত্র ১৮৯৬ সালে
ইসলাম কবুল করতে হয়েছে।
সারা আফগানিস্তান এবং সেন্ট্রাল এশিয়ার
ইসলামি দ্বাসত্বের হাত থেকে পালিয়ে
বাচা একহিন্দুগুলো
ইতিহাস জানুন।

****** বিশেষ দ্রষ্টব্য—- (খুব শীঘ্র আপনাদের
ওই রকম হতে হবে।
বাংলাদেশ থেকে শ্যামাপ্রসাদের কল্যানে
এখানে পশ্চিম বংগে এসে
ভালো থাকবেন ভাবছেন??? সে
গুড়ে বালি। সারা আফগানিস্তানের
এবং সেন্ট্রাল এশিয়া থেকে পালিয়ে
বেচে থাকা হিন্দুরা নিজেদের
ধর্ম রক্ষা করতেজিহাদীদের
সাথে অনেক বছর ধরে
টিকে ছিলো, হিন্দুকুশের অতি
দুর্গম পাহাড়ি কন্দরে, যার
নামকাফিরিস্তান পারেনি
আজ তার নাম১৮৯৬
সাল থেকে –“নুরীস্তান আপনাদের
জন্যমোগলীস্তানতৈরী করছেন আপনাদের
জ্ঞাতি গুষ্টি, দাদা
দিদি রা মিলে। আপনারা
সেই মোগলীস্তানে বাস করার জন্য
কলমা মুখস্ত করুনAshim Pal Aryaআমার কাছে খবর
আছে অসীম কলমা মুখস্ত
করে তৈরী। Sayan Pal. তোমরা তৈরী
তো??? আমার প্লেন রোজ
ভোরে ১৬ তে
ছাড়ে। আমি বিকেলে বা
রাত ১১ টার আগে
অন লাইন টিকিট কেটে
আবার চলে যাবো— — (স্বার্থ
পরতা বলো আর কাপুরুষতা
বলোপলায়ন মনোবৃত্তি যাই
বলো,এই বয়ষে সব
মেনে নেবো) আমেরিকার ভিসা
তো রয়েছে আগামী দশ
বছরতা সারা জীবন
তো জিহাদীদের জন্য উদবাস্ত হয়েই
কাটালাম। তবে আমেরিকায় গেলে
ট্রাম্প আমাদের বাচিয়ে দেবে,
আর ভয় নেই।)