ফজলুল হক এবং সোহরাবর্দীকে অতি মুল্যায়ন যারা বাংলায় সাম্প্রদায়ীকতার চারা গাছটি রোপন করেছিল।

Spread the love
কয়েকটি কথা না বললেই নয় কারন অহরহ দেখতে পাই বাংলাদেশের বন্ধুরা ফজলুল হক এবং সোহরাবর্দীকে অতি মুল্যায়ন করে পোস্ট লিখে থাকেন | 


ফজলুল হকের রাজনীতির হাতেখড়ি দেশবন্ধুর হাতে হওয়ায় একটি উদার অসাম্প্রদায়ীক চেতনা তিনি প্রথম দিকে স্বভাবতই হৃদয়ে ধারন করতেন এবং ১৯৩৭এর প্রাদেশিক আইন সভার নির্বাচন পরবর্তী সময়ে চেয়েছিলেন কংগ্রেসের সঙ্গে হাত মিলিয়ে সরকার গঠন করে মুসলিম লীগকে রুখে দিতে |  গান্ধী, প্যাটেল, নেহেরু প্রমুখ জাতীয় নেতৃবৃন্দের বাঙলা ও বাঙালী হিন্দুদের প্রতি বিদ্বেষ এবং বাংলা কংগ্রেসের নেতৃবর্গের অদুরদর্শিতা

(  দরকার হলে মুসলিম লীগ ক্ষমতায় আসুক কিন্তু Coalition Ministry কোন ভাবেই নয় ) তাঁর এই উদ্যোগকে প্রতিহত করে |তার পর অতি দ্রুত তিনি মুসলিম লীগের হাতের পুতুল হয়ে ওঠেন |  ১৯৫০এ বরিশালের হিন্দু গন নিধনের সময়ে তাঁর নিস্ক্রিয় ভুমিকা বাংলার হিন্দুরা মনে রাখবে আবহমানকাল |

এবং শেখ মুজিবের ১৯৫১ পরবর্তী প্রগতিশীল ভুমিকাকেও তিনি কোন সে অর্থে সমর্থন জানান নি |  আজকের বাংলাদেশ তাঁকে মনে রেখেছে তাঁর অস্থিরচিত্ততা ও দোদুল্যমানতার কারনে |
সুরাবর্দী আপাদমস্তক সাম্প্রদায়ীক ও কাফের বিদ্বেষি |  তাঁর রাজনৈতিক জীবনের প্রতিটি পর্যায়ে প্রবল ঘৃণার বিষ ছড়ানো বাদ দিলে বাংলার হিন্দুদের তাকে মনে রাখার মতো কিছুই নেই |