ভারতবর্ষের সেকুলার রাজনৈতিক তুষনের নামের এক আতুর ঘর।

Spread the love

ভারতবর্ষের সেকুলার রাজনৈতিক দলগুলো তো খুব বড় বড় মানবতাবাদের কথা বলে অথচ আজ সেকুলার রাজনৈতিক দলগুলোর নেতা-নেত্রীরা কেন তিন তালাকের উপর সুপ্রিম কোর্টের রায় নিয়ে মুখে কুলুপ এঁটেছে?

আমাদের রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দোপাধ্যায় তো নারীদের নিয়ে অনেক কিছু ভাবেন, রাজ্যের প্রকল্প “কন্যাশ্রী” নাকি আজকে “বিশ্বশ্রী” খ্যাত হয়ছে, নারী সমাজের অধিকার নিয়ে মমতা নাকি লড়াই করছেন এমনটাই উনার রাজনৈতিক দলের কর্মী-সমর্থকরা প্রচার করছে অথচ সেই মমতা বন্দোপাধ্যায়কে কি কেউ দেখলেন তিন তালাক নিয়ে সুপ্রিম কোর্টের রায়ের সমর্থনে কথা বলতে?

কারন যদি মমতা বন্দোপাধ্যায় তিন তালাক নিয়ে সুপ্রিম কোর্টের রায়কে স্বাগত জানাই তাহলেই তৃনমূল দলের অন্তরেই বিভেদ ঘটতে পারে । সিদ্দিকুল্লা চৌধুরী, ইদ্রিশ আলী, হাজী নরুল ইসলাম, সুলতান আহমেদ, ইমরান, রেজ্জাক মোল্লা এবং ত্বহা সিদ্দিকীরা একজোটে মমতার বিরুদ্ধে তোপ দাগবেন যার ফলে মুসলিম ভোটব্যাঙ্কের ক্ষতি হতে পারে । তাই ভোটব্যাঙ্কের রাজনীতির স্বার্থে নারীদের অধিকারকে তুচ্ছ মনে করেন স্বয়ং একজন মহিলা মুখ্যমন্ত্রী ।

তিন তালাকের মত একটি বর্বর প্রথাকে দেশ থেকে নির্মূল করা হল তবুও রাজনীতির স্বার্থে অনেকেই সুপ্রিম কোর্টের রায়কে স্বাগত না জানিয়ে মুসলিম মৌলবাদীদের পাশে দেখে অবাক লাগছে…..