ভারতীয় এক টিভি চ্যানেলে তালাক প্রথা নিয়ে বিতর্ক হচ্ছিল। মৌলানা আনসার রাজা ও তারেক ফতাহ এর তর্কাতর্কি। কিছু অংশ উদ্ধৃত করছি।
তারেক ফতাহ – তালাকের পর পূর্ব স্বামীর সঙ্গে যদি আবার বিবাহ করতে হয় তা হলে স্ত্রীকে আবার অন্য একজনকে নিকাহ করতে হবে। শুধু তাই নয়, সেক্সও করতে হবে। এরপর সেই স্বামীর সঙ্গে তালাক হলে তবেই পূর্ব স্বামীর সঙ্গে বিয়ে হতে পারবে। এটা কি মেয়েটার উপর বর্বরতা নয়?
রাজা – কিসের বর্বরতা? নিকাহ কি বর্বরতা?
ফতাহ – না মেয়েটিকে অন্য একজনকে বিয়ে করতে হচ্ছে এটা তো তার উপর নিষ্ঠুরতা।
রাজা – দেখুন, মেয়েটির উপর কোন নিষ্ঠুরতা করা হচ্ছে না। এর দ্বারা তার পূর্ব স্বামীকে শাস্তি দেওয়া হচ্ছে, স্বামীর প্রতি নিষ্ঠুরতা করা হচ্ছে, যে নিজের স্ত্রীকে তালাক দিয়েছিল, আবার বিয়ে করতে চাইছে।
ফতাহ – কিন্তু মেয়েটিকে নিকাহ দেওয়া হচ্ছে তার ইচ্ছার বিরুদ্ধে।
রাজা – (গাঁক গাঁক করে চিল্লিয়ে) ইচ্ছার বিরুদ্ধে কি রকম? ইচ্ছার বিরুদ্ধে কোন নিকাহ ইসলাম সমর্থন করে না। তার সম্মতিতেই বিয়ে হচ্ছে।
ফতাহ – কিন্তু তাকে কেন রেপ হতে হবে?
রাজা – কিসের রেপ? কি বলছেন আপনি? নিকাহর পর সেক্স করলে তাকে রেপ বলছেন?
ফতাহ – কিন্তু সে তো নিজের পূর্ব স্বামীর ঘরেই যেতে চাইছে। অথচ আপনারা শর্ত দিচ্ছেন যে,
রাজা – (চিল্লিয়ে) নিকাহ মানে কি রেপ? কি বলছেন আপনি?
ফতাহ – লেকিন উও তো আপনে শওহরকে ঘর বাপস জানা চাহতে হ্যায়। আপ কিসলিয়ে উসে জবরদস্তি দুসরোকে ঘর ভেজতে হ্যায়।
রাজা – নেহি নেহি কোই জবরদস্তি নেহি। ইয়ে আপ ঝুট বোল রহে হ্যায়।
রাজা প্রচন্ড চিৎকার করতে থাকল, লাগাতার…..

Razik halder