পাপন সাহেব নিশ্চয় ফোন করে আগেই জানিয়েছিলেন, ম্যাডাম ম্যাচ জিততে এখন সময়ের ব্যাপার মাত্র, অস্ট্রেলিয়াকে হারানোটা অনেক বিরাট ব্যাপার, আপনি চলে আসেন। একটা পতাকা হাতে নিয়ে উড়াবেন… আগামী তিনদিন ক্রিকেট জয় আর ঈদের ছুটির সাথে গরুর মাংস মিলিয়ে সব ভুলিয়ে দিবেন…।

ক্রিকেট কেবল ব্যবসা না, রাজনীতির বড় পাশার দান। অস্ট্রেলিয়াকে হারানোটা জাতিকে ঈদের উপহার- এটা আসলে রূপা প্রামাণিককে চলন্ত বাসে ধর্ষণ করে ঘাড় ভেঙ্গে হত্যার ঈদ উপহারকে আড়াল করা। একজন নেত্রীর পৃথিবীর চরম একঘেয়ে বিরক্তিকর টেস্ট ম্যাচ দেখতে যাবার সময় হলেও আজতক কোন ধর্ষিতার বাড়ি যাবার সময় হয়নি। দুই কোটি টাকা বোনাস, সাকিবের মাথায় হাত রাখার চাইতে ধর্ষিতার মা বাবা ভাই বোনদের মাথায় আপনার হাতটা তাদের এইদেশে বেঁচে থাকতে মানসিকভাবে সাহসী করে তুলত। …

মীরপুর টেস্ট চলাকালে এক ফেইসবুক বন্ধু ইনবক্সে একটা ছবি আমাকে দিয়েছিলো  স্টেডিয়ামের বাইরে ছাত্ররা রাস্তা অবরোধ করেছে মাঠের ভেতরে ঢুকতে না পারার প্রতিবাদে। ছবিটার দিকে চেয়ে থেকেছি একমনে। ক্রিকেট খেলা দেখতে না পারার ক্ষোভে যে দেশের ছাত্র সমাজ রাস্তা অবরোধ করতে পারে তারা কেন শত শত অন্যায় অপরাধের বিরুদ্ধে সোচ্চার হয় না? এদেশের ছাত্র সমাজের জাগরণের ইতিহাস তো গৌরবজনক। হাই স্কুলের ছাত্ররা ভাষার জন্য, স্বাধীনতার জন্য রাস্তায় নেমেছিলো। এখন শুধু মমিনুলকে দলে না নিলে বড়জোর তারা রাস্তায় নেমে গাড়ি ভাঙ্গতে পারে…।

অস্ট্রেলিয়াকে ক্রিকেটে হারানোটা আপনাদের ঈদ উপহার নয়। রূপার রক্তাক্ত ছবিটাই আপনাদের ঈদ উপহার।