#লাভ_জিহাদ_একটি_প্রশ্ন

আজ থেকে সাত বছর আগে আমার প্রবাসী কর্মসংস্থানে আমার অধীনে কর্মরত একটি মুসলিম ছেলে ‘আমজাদ’ এর লাভ জিহাদের উদাহরণ দিচ্ছি। রাজস্থানী মুসলিম ছেলেটি বেছে বেছে হিন্দু ও হিন্দু রাজপুত মেয়েদের টার্গেট করতো, দেখতে খুব সুন্দর না হলেও, সুন্দরী মেয়েগুলো এর ফাঁদে পড়ত। ওর টার্গেট ছিল যত বেশি করে হিন্দু মেয়েদের শরীরের স্বাদ নেওয়া। এ সমস্ত মেয়েগুলি কে আমার প্রতক্ষ্য অভিজ্ঞতা থেকে বলছি এরা বেশি সাজা গোজা, সিনেমা, ফুর্তি, আমোদ প্রমোদ, এসবে উন্মুখ ছিল, কিন্তু যখন আমজাদ তাদের ধোখা দিয়ে কেটে পড়ত, তখন কেঁদে কুল পেত না, বহু ক্ষেত্রে আমজাদ মার খেতে খেতেও বেঁচে গেছে। বর্তমানে সে দুবাই তে। কিন্তু আমি যেটা বলতে চাই

হে আমার হিন্দু ভগিনীগণ,

তোমরা কি মনে করো, ভালোবাসায় ধর্ম কোনো ব্যাপার নয়, যেহেতু ধর্ম ব্যাপার নয় সেহেতু শরীর ও নয়।
যদি এই তোমাদের উদ্দেশ্য হয় তাহলে তোমরা কেন পতিতালয়ে যুক্ত হও না, সেখানে তো তোমাদের অধিক লাভ, আর্থিক ও শারীরিক দুটোই। সেখানে তো কোনো শরীরে ধর্ম কাজ করে না- যদি না পারো তবে কেন নিজের বাপ মা ভাই বোনে পরিবারের মুখ পুড়িয়ে মুসলিম ছেলেদের সাথে শোবে। শুতে যদি হয় তবে সর্বস্ব ত্যাগ করে পতিতালয়ে যাও। যখন মুসলিম ছেলেদের সাথে শোয়াতে তোমাদের সতীত্ব প্রসঙ্গ আসে না, তবে পতিতালয়েও সে প্রসঙ্গ আসা উচিত নয়।- তাই নয় কি ??

এভাবে যখন প্রতারিতও হবে আর সাথে মোল্লা বীর্যে জন্ম হওয়া সন্তান কে তোমার গর্ভে ধারণ করবে তখনও কি তোমার নিরপেক্ষ ধর্ম ও ভালোবাসা কাজ করবে ?? মানুষের মতো চিন্তা যদি থাকে তাহলে নিশ্চই নয়।
কিন্তু সেই সন্তানের জন্ম দিতে অপারগ তুমি হবে, ও পরে একটা হিন্দু ছেলের ঘরে তুমি চুপি চুপি বউ হয়ে তোমার সেই ঘৃণ্য কাজ কে লুকিয়ে, তাকে প্রতারিত করে তুমি তার স্ত্রী হবে, ভালোবাসায় যদি ধর্ম থাকা উচিত নয়- এই দর্শন যদি তোমাদের বিবেকে থাকে তাহলে তোমাদের বিবেকে সেই হিন্দু ছেলেটিকে প্রতারিত করাও উচিত নয়।

ভেবে দ্যাখো, মহারানী পদ্মাবতীর কথা- তোমরা যদি নিজেকে সুন্দরী মনে করে মোল্লাদের প্রতি আকৃষ্ট হয়ে সেই ঘৃণ্য কর্ম করতে পারো- তবে ভেবে দ্যাখো পদ্মাবতীর কথা- তোমাদের থেকে শত সহস্র গুন সুন্দরী হওয়া সত্ত্বেও, নিজের ধর্ম নিজের রূপ বেচে দেননি খিলজির হাতে। বিপরীতে আগুনের কুণ্ডে ঝাঁপ দিয়ে সতীত্বের পরিচয় দিয়েছেন। তোমরা তো তাঁর কাছে তুচ্ছ পিপিলিকার মতো।

শিক্ষা নাও সেই সতির বীরত্বের কাহিনী থেকে, তোমাদের এই রূপের সাথে তোমরা যদি বীরঙ্গনা না হতে পারো তাহলে লাভ জিহাদ আর ইসলামের যৌন দাসী হওয়ার মধ্যে কোনো পার্থক্য আছে কি ??

ভেবে দ্যাখো ??  তোমাদের ত্যাগ ও বিবেকের উপর দাঁড়িয়ে আছে ভবিষ্যৎ হিন্দু সমাজ, তোমরা সমাজের মায়েরা-তোমাদের হাত ধরেই আসবে ভবিষ্যতে হিন্দু বীর । নাহলে রইবে ইসলামের দাসত্ব –

কোনটা চাও তোমরা ???