ওগো কিছু কইস না, কইলাম!

Spread the love

আজকের দিনে আজ থেকে থেকে সাত বছর আগে বাপের সাথে অবৈধ ভাবে কাঁটা তারের বেড়া পার হতে গিয়ে বি,এস,এফ এর গুলিতে ভারত বাংলাদেশ নো ম্যান্সস ল্যান্ডে মারা গিয়েছিল বাংলাদেশের ফ্যালানি খাতুন। এর বিচার চেয়ে তদানীন্তন বাংলাদেশি পত্র পত্রিকায় অনেক লেখা লেখি হয়েছিল। ভারতের বিরুদ্ধে আন্দোলন গড়ে উঠেছিল। সেই ফ্যালানি খাতুনকে স্মরণ করে অনেক রাগে দুঃখে হাজি কলিমুল্লাহ সাহেব লিখেছিলেন নিন্মের এই পোস্ট। তবে এই একটি পোস্ট লিখেই উনি ফেসবুক থেকে বিদায় নিয়েছেন মনের দুঃখে। সেই হাজি কলিমুল্লাহের সম্মানে আবারো রিপোস্ট করলাম।
   

Hazi Kolimullah
15 hrs · Edited ·
ভারত আমাদের কিরাম বন্দু?আমাগো দ্যাশের লোকেরা ভারতে একটু গরু চুরি করতে যায়। ভারতে গিয়া একটু আধটু ডাকাতি করে। মাঝে মাঝে ভারতে গিয়া ভারতীয়দের খুন জখম করে। একটু আধটু বোম ব্লাস্ট করে। জাল টাকা ছড়ায়। জংগি সহায়তা প্রদান করে। আমাগো দ্যাশের যশোরের সাহসী পোলারা রানাঘাটে গিয়া বুইড়া খ্রীষ্টান নান ধর্ষন কইরা ডাকাতি করে। আমাগো দ্যাশের বেকার ছেলেটা ভারতের বর্ডারের কাটা তার একটু কেটে এনে বাংলাদেশে সের দরে বেচে। কেউ কেউ ফেনসিডিল আনতে ভারতে যায়। তাই বইলা বি এস এফ আমাগো দ্যাশের লোকদেরকে তাগো দ্যাশের নো মান লেন্ডে রাতের বেলা পাইলেই গুলি কইরা মাইরবো! আন্ত:জাতিক আইন নাই নাকি! এই ফেলানির কথাই ধরেন, কী এমুন অপরাধ করছিল বেচারা? শুধুমাত্র অবৈধ্য ভাবে বাপের সাথে ভারতে গিয়া কাজ কইরা অবৈধ ভাবে রাতের নো মান লেন্ডে মৈ দিয়া উইঠা কাটা তারের বেড়া পার হচ্ছিলো। আর ঐ হারমীর বাচ্চা বি এস এফের কত বড় সাহস টাওয়ারের উপর থেইক্কা মাইয়াটারে গুলি করে দিলো। আরে অবৈধ অনুপ্রবেশকারীকে গুলি করার দরকার কী! টাওয়ার থেকে নাম্ময়া তাড়ায়া ধরলেই তো হইতো। তাতে যদি গুলি কিংবা বোমা খাইতে হইতো, তো খাইতি, তাই বইলা তুই….হারামীর পো, খানকির পোলা, তুই আমাগো দ্যাশের লোক মারবি! ভারত না আমাগো বন্দু দ্যাশ! বন্দু দ্যাশ বাংলাদেশের লোক যদি তোর মারেও চোদে, তাও তো তোর বন্দু দ্যাশ হিসাবে চুপ থাকার কথা, তা না তোরা কথায় কথায় আমাগো দ্যাশের লোকের উফরে গুলি চালাস। তোরা না হিন্দু, তোগো রক্ত এতো গরম ক্যান? বাংলাদেশি হিন্দুদের উফর আমরা কত কি করি। কই তারা তো কোন প্রতিবাদ করেনা। উল্টা আমাগো দালালি করে(পিনাকীর টাইমলাইন ঘুরে আসেন)। হিন্দু মায়ের সামনে তার নাবালিকা কন্যা কে আমরা ধর্ষন করছি, মায়ে কিছু কয় নাই, খালি হাত জোড় করি কইছে, আপনারা একজন একজন করে করেন, আমার মাইয়াডা ছডো মইরা যাইবো। বাংলাদেশি হিন্দুদের কাছে শেখো, হালার পো হালা বি এস এফ কী কইরা বন্দুত্ব রাখবার হয়! ভালা হইয়া যা, আর কোন গরু চোর কে যেন গুলি কইরা মারা না হয়। গরুর গোসত আমাগো জাতীয় খাবার। গরু চোররা দ্যাশের সেবক, আমাগো জান। ওগো কিছু কইস না, কইলাম!

Courtesy Rezaul Manik