শেয়ার করুন যাতে প্রত্যেক ভারতবাসী ভারতে ঢুকে থাকা পাকিস্তানী সৈন্যদের সহজেই চিনতে পারে…..

সত্যিই পাকিস্তান বিশ্বের সবচেয়ে ভাগ্যশালী একটা দেশ….

বিশ্বের প্রত্যেকটা দেশ কোটি কোটি টাকা খরচ করে সেনাবাহিনী তৈরী করে রেখেছে কিন্তু একমাত্র পাকিস্তানই বিনা পয়সায় ভারতবর্ষে সেনা ঢুকিয়ে রেখেছে….

পাকিস্তানী সেনার এই সৈনিকরা ভারতবর্ষে রাজনৈতিক দলগুলোতে ঢুকে বসে আছে ।

এই পাকিস্তানি যোদ্ধারা চুপচাপ নিজেদের কাজ সেরে ফেলে আর সেই কাজকে ভারতবর্ষের নির্লজ্জ জনতা সমর্থন করে ।

আতঙ্কবাদীদের বড় সন্মানের সহিত হাফিজ জী, ওসামা জী বলে সম্বোধন করে..

ইসরত জাহান এনকাউন্টারের সময় আতঙ্কবাদীটাকে নিজেদের “কন্যা” বলে পরিচয় দেয়….

মুম্বই বোম হামলার সময় পাকিস্তানকে নির্দোষ প্রমাণ করতে হামলার দায় হিন্দু সংগঠন গুলোর ঘাড়ে চাপাতে চেয়েছিল….

আফজল গুরু, ইয়াকুব মেমনদের  ফাঁসির বিরোধীতা প্রকাশ্যে করে এবং এই সন্ত্রাসীদের বাঁচাতে মধ্য রাতে সুপ্রিম কোর্ট খুলতে বাধ্য করে….
বাটলা হাউস এনকাউন্টারের সময় এই পাকিস্তানি সৈনিকরা চোখের জলে বন্য করে দিয়ে, জনগণের মধ্যে গুজব ছড়াতে থাকে যে পুলিশ ভুল কাজ করেছে….

এই পাকিস্তানি সৈনিকরা জহরলাল নেহেরু ইউনিভার্সসিটিতে দেশবিরোধী স্লোগান দেওয়া “নিরীহ শিশুদের” নির্দোষ প্রমাণ করতে পথে নেমেছিল….

পাকিস্তানে ঘটে যাওয়া প্রতিটি আতঙ্কবাদী হামলায় নিহত পাকিস্তানীদের জন্য পিছনে মোমবাতি গুঁজে ইন্ডিয়া গেটে পৌঁছে যায় কিন্তু কাশ্মীরের পন্ডিতদের হত্যা কিংবা সেনার মৃত্যুতে এদের কোনো প্রতিক্রিয়া থাকেনা….

এরা সময়ে সময়ে “পাকিস্তানী সরকারের” কাছ থেকে সাহায্য চাই নিজেদের দেশে সরকার তৈরীর জন্য….

এরা ভারতীয় সেনার কাছ থেকে সার্জিক্যাল ষ্ট্রাইকের প্রমান চায়….

এরা এই দেশের সংখ্যাগুরু সম্প্রদায়ের আরাধ্য দেবতা ভগবান রামচন্দ্রকে কাল্পনিক বলে এবং মন্দিরে যারা পুজো করতে যায় তাদের বলে মেয়েদের শ্লীলতাহানি করতে নাকি তারা মন্দিরে যায়….

এরা দেশের সংখ্যাগুরুদের নীচ দেখাতে বড় বড় পোষ্টার লাগিয়ে গো-হত্যা করে এবং সংখ্যালঘুদের ভোটের জন্য পদলেহন করে প্রকাশ্যে গরু মাংস খায়…..

এরা নিজেদের এজেন্ট মিডিয়া এবং শিক্ষা প্রতিষ্ঠানেও সুকৌশলে ঢুকিয়ে রেখেছে….

এদের কিছু নেতা সাহরানপুর দাঙ্গার সময় আগুন লাগিয়ে দেওয়ার হুমকি প্রদান করে….

এই পাকিস্তানি সৈনিকরা মধ্যপ্রদেশে কৃষকের ভিতরে ঢুকে দাঙ্গা ছড়িয়ে দেওয়ার পরিকল্পনা করে….

এই পাকিস্তানি সৈনিকরা সদ্য আমাদের স্থল সেনার প্রধানকে জেনারেল ডায়ারের সাথে তুলনা করে, কেউ কেউ আবার গুন্ডাও বলে….

সত্যিই পাকিস্তান একটা ভাগ্যশালী দেশ…..

এই পাকিস্তানী সেনাবাহিনীর সৈনিকদের থেকে প্রত্যেক ভারতবাসী সাবধান ও সচেতন থাকুন, কারন এরা ২০১৯ ভোটের আগে পাকিস্তানের নির্দেশ দাঙ্গা করিয়ে হিন্দু হত্যার ছক কষতে পারে ।