১৯৪৩ সালের ২১শে অক্টোবর অখন্ড ভারতের প্রথম স্বাধীন সরকার “আজাদ হিন্দ সরকার” এর ঘোষণা করেন বঙ্গ তথা ভারত গৌরব নেতাজী সুভাষ চন্দ্র বসু। তিনিই ছিলেন সেই সরকারের প্রধানমন্ত্রী। অখন্ড ভারতের প্রথম ঘোষিত সরকারের প্রধানমন্ত্রী নেতাজী সুভাষ চন্দ্র বসু। পুরো ইতিহাস জানতে ভিডিওটি একবার দেখুন। 

এই আজাদ হিন্দ সরকারের ৭৫ বর্ষ পূর্তি উপলক্ষ্যে গতকাল, ২১শে অক্টোবর লালকেল্লার মাথায় জাতীয় পতাকা উত্তোলন করলেন নরেন্দ্র মোদী৷ তাঁর সঙ্গে ছিলেন আজাদ হিন্দ বাহিনীর ১০ জন জীবিত সেনানী৷ বাঙালি প্রধানমন্ত্রী চেয়েছিল তৃণমূল। নরেন্দ্র মোদিকে ধন্যবাদ অখন্ড ভারতবর্ষের প্রথম প্রধানমন্ত্রী নেতাজীকে তুলে ধরার জন্য।

আজাদ হিন্দ সরকারের ৭৫ বর্ষ পূর্তিতে লালকেল্লার মাথায় উঠলো জাতীয় পতাকা৷ আজাদ হিন্দ ফৌজের সম্মানে মোদী সরকারের কাছে এই আবেদন জানিয়েছিলেন রাজ্য বিজেপির সহ সভাপতি তথা নেতাজি সুভাষ চন্দ্র বসুর প্রপৌত্র চন্দ্রকুমার বসু,  প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীকে কয়েকবার চিঠি লিখে চন্দ্রকুমার জানিয়েছিলেন, আজাদ হিন্দ বাহিনীর সম্মানে আগামী ২১ অক্টোবর লালকেল্লার মাথায় উঠুক তেরঙা৷  কারণ ওইদিনই সংয়ুক্ত ভারতের প্রথম সরকারের ৭৫ বছর হবে৷ ওই স্মরণীয় দিনে লালকেল্লার মাথায় তেরঙা ওঠা উচিত৷ এতদিনে তাঁর প্রচেষ্টা সফল হয়েছে৷
চন্দ্রকুমারের বক্তব্য, ‘‘প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীজি দেশের জন্য নিজের দায়িত্ব পালন করছেন৷ দেশের মানুষ জানতে পারবেন অবিভক্ত ভারতের প্রথম প্রধানমন্ত্রী নেতাজী সুভাষ চন্দ্র বসুর আজাদ হিন্দ সরকারের কথা৷’’

আপনাকে ২১শে অক্টোবর দিনটার গুরুত্ব জানতেই দেওয়া হয়নি। জানতে দেয়নি গান্ধী-নেহেরুর কংগ্রেস, দেয়নি কমিউনিস্ট, দেয়নি “বিশ্ববাংলার রূপকার” পরম মমতাময়ী। তাই এক গুজরাতির থেকেই স্বীকৃতি পেতে হল ২১শে অক্টোবরের। যারা বাঙ্গালী প্রধানমন্ত্রী চেয়ে ছিলেন আশাকরি আজ তারা খুব খুশি।