ব্লগার কিলিংয়ের আগে পরে যারা নাস্তিক ব্লগারদের লেখার স্বাধীনতার বিরোধী ছিলো এবং তাদের হত্যার পর নানাভাবে তাদের হত্যাকে জাস্টিফাই করেছিলো এমন কিছু চরিত্রকে আমি ব্লগার কিলিংয়ের সময়কার ‘রাজাকার’ বলে থাকি। এরকম একটা লিস্ট থাকা উচিত সময়কে ধারণ করার জন্য। এই তালিকা নিয়ে বিতর্ক থাকবে স্বাভাবিক। সবাই একমত হবেন না। এখানে ফারাবীর নাম নেই কারণ ফারাবী সরাসরি ঘাতকদের সহযোগী বা সমমনা ছিলো। তালিকায় নামধারীদের কেউ সেই গ্রুপের বা আদর্শের নয়। তবু, শুধুমাত্র ইসলাম ধর্ম নিয়ে লেখালেখির কারণে তাদের উপর বিষেদাগার করে গেছে এরা। শাহবাগে যুদ্ধাপরাধীদের বিচারের দাবীতে ব্লগারদের সমবেত হওয়ার সময় ব্লগারদের নিয়ে কুৎসিততম গল্প লিখে বা ব্লগার কিলিংয়ের বহু আগে থেকে ব্লগযুগে নাস্তিকদের আইডি খাওয়া, তাদের ‘খাসি’ নামকরণ করে লেখালেখিকে কঠিন করে তোলা ব্যক্তিদেরও এখানে রাখা হয়েছে কারণ মুক্তিচিন্তার শত্রু হিসেবে তারাও কাজ করেছে বলা চলে। বাকীদের ভূমিকা ব্লগার হত্যার পর, অমুক ব্লগারদের লেখার জন্যই তমুক ব্লগার প্রাণ দিয়েছে, ‘ইসলাম বিদ্বেষী ব্লগারদের’ কারণে ঘাতকরা নিরহ ভালো সুশীল ব্লগারদের হত্যা করতে চাইছে’ জাতীয় তত্ত্ব খাড়া করে যারা ব্লগার কিলিংয়ের একটা সহনীয় কারণ দাঁড় করাতে চেষ্টা করেছে, যারা ‘ব্লগাররা ইসলামের বিরুদ্ধে লেখে কারণ ইসলাম নিয়ে লিখলে ইউরোপে পাকা পায়খানায় হাগু করা যায়’ কথা বলে ব্লগার হত্যাগুলোকে নিয়ে উপহাস করেছে, যারা নাস্তিক ব্লগারদের লেখালেখি বাদ দিয়ে ঢেড়ষ চাষ করতে বলেছিলো, যারা ব্লগার শব্দটা একটা ‘গালি’ বলে প্রচার করেছিলো, সেই সময়ে যখন ব্লগাররা প্রাণ বাঁচাতে আশ্রয় খুঁজছিলো, যখন সরকার থেকে তাদের জীবনের নিরাপত্তার দায় নিতে চাইছিলো না, যখন ইসলামিস্ট খুনিরা রেকি করছিলো ব্লগারদের সে সময় এই কথাগুলো পরিবেশটাকে ব্লগারদের জন্য আরো ভয়ংকর প্রতিকূল করে তুলেছিলো। কাজেই এই লোকগুলোর কথা কখনই ভুলে যাবার নয়…।

(১)হাসনাত আবদুল হাই (সাহিত্যিক)
(২)জাকির তালুকদার (সাহিত্যিক)
(৩)অদিতি ফাল্গুনি (সাহিত্যিক)
(৪)মুস্তফা সরওয়ার ফারুকী (টিভি নাটক নির্মাতা)
(৫)আবদুন নূর তুষার (টেলিভিশন উপস্থাপক)
(৬)বাত্য রাইসু (কবি)
(৭)ফরিদ আহমেদ (ব্লগার)
(৮)মুহাম্মদ গোলাম সরওয়ার (ব্লগার)
(৯)পারভেজ আলম (ব্লগার)
(১০)পিনাকি ভট্টাচার্য (এক্টিভিস্ট)
(১১)অমি রহমান পিয়াল (ব্লগার)
(১২) নিঝুম মজুমদার (ব্লগার)