যখনই হিন্দু আক্রান্ত হয় কৌশলে দুটো কথা বলা হয় ..

Spread the love

যখনই হিন্দু আক্রান্ত হয় কৌশলে দুটো কথা বলা হয় ..
এক জঙ্গীদের কোনো ধর্ম হয় না;
দুই উগ্র হিন্দু রাই এই ঘটনার জন্য দয়ী..
ভালো কথা যদি জঙ্গীদের কোনো ধর্মই না হয় তাহলে জঙ্গীদের ধরা হলে তাদের আগুনে পুড়িয়ে দেওয়া হোক?কারন আমরা জানি আগুন সব বিষাক্ত বিষয়  পোড়াতে সক্ষম..
জঙ্গীদের যদি ধর্মই না থাকে আপনারা খেয়াল করবেন আক্রমনের আগে সবাই এক যোগে আল্লাহো আকবর চিৎকার করে আক্রমন করে( কোনো ধর্ম কে আঘাত দেওয়া আমার অভিপ্রেত নয় যেটা সত্য সেটা বললাম)
জঙ্গীদের যদি ধর্মই না থাকে তাহলে তাদের মৃত্যুর পরে বিশেষ নিষ্ঠা ভরে জানাযা কেন দেওয়া হয়?
জঙ্গীদের যদি ধর্মই না থাকে তদের সৎক্রিয়ার সময় নমায কেন পড়া হয়?
জঙ্গীদের যদি ধর্মই না থাকে সমস্ত খবরের চ্যানেলে কোনও এক বিশেষ সম্প্রদায়ের জঙ্গী বলে কেন পরিচয় দেওয়া হয়?
আচ্ছা লস্করই তৈয়বা,জয়েস-ই – মহম্মদ,সিমি,ইন্ডিয়ান মুজাহিদিন,আলবদর,রাজাকার,আল কায়দা,আইএসআইএস,বোকোহারাম,এসডিইউএফ,
হেফাজতে ইসলাম,হামাস,হাক্কানি গ্রুপ,বাংলাভাই,IM,আরও আরও
কত নাম বলবো সারা বিশ্ব জুড়ে যেভাবে এই সব সংগঠন গড়ে উঠেছে আর মানব সভ্যতা কে প্রশ্নের মুখে দাড় করিয়ে দিয়ছে এরা কি সত্যি কোনো একটা নির্দিষ্ট ধর্মের অনুসারি নয়?
আপনার বুকে হাত দিয়ে বলুনতো না তারা কোনোও ধর্ম মানেনা…
সত্যটা কত দিন আমরা  আড়াল করে যাব..
সত্য প্রতারিত হতে পারে পরাজিত নয়..
সূর্য কে যেমন মেঘের আড়ালে ঢাকা যায় না সত্যকেও লুকিয়ে রাখা যায না..সত্য বেড়িয়ে আসবেই.
যেকোনো মৃত্যই মর্মান্তিক, কিন্তু হিন্দুরা মরলেই জঙ্গীদের ধর্ম হয় না বলে চালানো আর উগ্র হিন্দুদের কাজ বলে চালানো বন্ধ হোক..
হিন্দুরা যদি উগ্র হতো ভারতবর্ষে কোনও দিনই অন্য সম্প্রদায় বসবাস করতে পারত না..আজও তার ধারা বহন করে চলেছি আমরা হিন্দৃরা..কারন হিন্দুরাই বলে “সর্বে ভবন্তু সুখিনঃ সর্বে সন্তু নিরাময়া,সর্বে ভদ্রানি পশ্চন্তু ,মা কশ্চিৎ দুখঃ ভাগভবেৎ.”বিশ্ব মানবতার কথা হিন্দুরাই বলে না হলে হিন্দুদের হাজার হাজার বছর ধরে অন্য মতাবলম্বিরা আক্রমন করেছে আর মেরছে..এত সহনশীল নিপীড়িত জাতি পৃথিবীতে আর দুটো নেই..তারপরও হিন্দুরা না গড়েছে কোনোও জঙ্গী সংগঠন না করেছে বিশ্বে কোথাও আক্রমন ..তাহলে হিন্দুরা উগ্র কি করে হয়? অপপ্রচার বন্ধ করুন ..নিজেকে প্রশ্ন করুন আপনি হিন্দু আপনি কি উগ্র? ভাবুন একবার বুকে হাত রেখে.
হৃদয়ের গভীর থেকে একটা স্পষ্ট শব্দ বেড়িয়ে আসবে আমি হিন্দু কাউকে তো ক্ষতি করিনি ,আমার ধর্মও সেটা শেখায় না তবুও আমি আজ কেন এত লাঞ্ছিত নিপীড়িত পদদলিত ???
আসুন আমরা সত্যি টা চাপা না দিয়ে তার যথাযথ প্রকাশ করার শপথ করি এবং যে দোষী তার বিচারের দাবী জানাই..
বিবেকানন্দ বলতেন সত্যের জন্য সব কিছু ছাড়া যায়.কিন্তু কোনো কিছুর জন্য সত্যকে যেন পরিত্যাগ না করি যেটা আজ ক্ষমতা লোভী স্বার্থপর কিছু মানুষ করে যাচ্ছে শুধুমাত্র নিজের সস্তা প্রচার এবং ক্ষমতায় থাকার শেষ না হওয়া লোভের কারনে ,বিশেষ করে ভারতের তথা কথিত মেকি সেকুলারবাদীরা যারা কোনোও কিছুতেই সত্যকে মানতে রাজী নয়..
এদের কাছে একটা দু টাকার পেন আছে আর মনে যা আসছে বলে যাচ্ছে তাতে দেশ বা জাতি বাঁচুক আর মরুক,প্রয়োজনে এরা দেশকেও বিক্রি করতে ছাড়বে না..
তাই আজ সময় হয়েছে এইসব দেশদ্রোহী হিন্দু বিরোধীদের সমুলে তুলে ফেলার..আর আপনিই পারেন এদেরকে মূল থেকে উপরে ফেলতে…
আসুন আর তোষামোদ নয়..কোনো একটা ধর্মকে অন্যায় করলেও তোষামোদ করে ছেড়ে দেওয়া নয়..আবার নিরাপরাধী কে কাঠগড়ায় দাঁড় করানোও নয়..যে অন্যায়কারী তার সত্য উন্মোচন করি..
আসুন তোষামোদবাদী না হয়ে প্রকৃতরাষ্ট্রবাদী হই…জঙ্গীবাদ ,তোষামোদবাদ নিপাত যাক..

রাজীব ঘোষ..