যারা বিশ্বাস করেন প্রেম ভালবাসা কোনো ধর্ম মানে না….
সেই মানুষ গুলো এক একটা গাধা ।

একটু ইতিহাসের দিকে চোখ দিই তাহলে দুরদর্শনে যখন প্রথম রামায়ণ শুরু হয় তখন অলিতে গলিতে সবাই রামায়ণ দেখার জন্য ছুটত এবং রামের ভূমিকায় অভিনেতা অরুন গোভিল ও সীতার ভূমিকায় অভিনেত্রী দীপিকা চিকলিয়াকে দেখলেই সবাই প্রনাম করত, এই রাময়ণ রাম জন্মভূমি আন্দোলনের ক্ষেত্রে গুরুত্বপূর্ন ভূমিকা পালন করেছিল । এরপরেই কংগ্রেস ধর্মনিরপেক্ষ দেশের অজুহাত দেখিয়ে আলিফ লায়লা, যোধা আকবর, দান সাগর নামে মুসলিম, খ্রীষ্টান ধর্মীয় অনুষ্ঠান শুরু করে ।

মুসলিম পরিচালকরা মেগা-সিরিয়াল ও সিনেমা তৈরী করে হিন্দু যুবতীদের প্রতি অন্য ধর্মে বিবাহ বা প্রেম করার জন্য উৎসাহিত করে ।

গতকাল আলিপুরের রাজা সন্তোষ রোডের গেষ্ট হাউসে মেঘা রজক নামক ২২ বছরের এক হিন্দু যুবতীর মৃতদেহ উদ্ধার করেছে ।
মহম্মদ মঈজ আলির সাথে গেষ্ট হাউসে যৌন মিলন উপভোগ করতে গিয়ে রক্ত ক্ষরনে মারা গেছে ওই যুবতী এমনই খবর পাওয়া যাচ্ছে ।

হিন্দুদের এসব খবর শুনে হতাশ হওয়ার কিছু কারন নেই, কারন দোষটা আমাদের নিজেদের । সন্ধ্যা বেলা থেকে আজকাল প্রতিটা হিন্দুদের বাড়ী বাড়ীতে সেকুলার, মুসলিম প্রীতির সিরিয়াল চলে যা মা, মেয়ে একসাথে বসেই দ্যাখে, এক হিন্দু মেয়ের সাথে মুসলিম ছেলের প্রেম কিংবা হিন্দু গৃহবধূর সাথে মুসলিম যুবকদের সম্পর্ক এমনভাবে পরিবেশিত হয় সিরিয়ালে যেটা দেখেই হিন্দু মেয়েরা মুসলিমদের প্রতি সহানুভূতিশীল হয়ে পড়ে, ফলে কোনো মুসলিম যুবক হিন্দু মেয়েদের প্রপোজ করলেই প্রেমে পড়ে বিছানা অবধি পৌঁছে যায় ।

মেঘা রজকের ক্ষেত্রেও তাই হয়েছে, আগে হিন্দুদের উচিত তাদের বাড়ীর টিভিতে মেগা সিরিয়াল দেখা বন্ধ করা এবং বাড়ীর মেয়েদের উপর একটু নজরদারি করা ।

হিন্দুরা নিজের ধর্ম ত্যাগ করে মুসলিম ছেলেকে বিবাহ করতে পারে কিন্তু কোনো মুসলিম ছেলে কি হিন্দু মেয়েকে বিবাহ করার জন্য হিন্দু ধর্ম গ্রহন করতে পারবে?