প্রথমে তার শরীরের চামড়া কাটতে শুরু করেছে।
চামড়া কাটার সময় এটা খেয়াল রাখা হচ্ছে যেন মরে না যায় হাত পা সহ সমস্ত শরীরের চামড়া কেটে জ্যান্ত অবস্থায় মাংস কেটে টুকরো টুকরো করে ফুটন্ত তেলের মধ্যে ফেলে রান্না করা শুরু করে।
উপরোক্ত বর্ণনা কোন পশু রান্না করার পদ্ধতি নয় বরং একজন মানুষকে জ্যান্ত রান্না করার বিবরণ যার চামড়া উঠিয়ে জ্যান্ত কেটে রান্না করা হয়েছিল‌।
তাকে এই নির্মম মৃত্যু এই কারণে দেওয়া হয়েছিল কারণ সে একজন কাফির ছিল, একজন হিন্দু ছিল।
তার নাম ছিল হরপাল দেব। দেবগিরির রাজা রামচন্দ্র দেবের শেষ উত্তরাধিকারী।
স্বাধীনতা চাওয়া ছিল তার দোষ ।সে লড়াই করেছিল ,হেরেছিল কিন্তু মাথা নত করেনি, ইসলাম গ্রহণ করেনি।
ভারতের বর্বর সুলতান আলাউদ্দিন খিলজির যৌনবিকৃতি উত্তরাধিকারী কুতুবউদ্দিন মোবারক খিলজী।
সে এখানে থামেনি,সেই জানোয়ারটা ওই মাংস হরপাল দেবের স্ত্রী-পুত্র আর আত্মীয়স্বজনদের সামনে রেখে তাদের মুখে ঢুকিয়ে দেয়।
তারপর মহিলাদের নগ্ন করে তাদের নিলাম করা হয়।
আপনার হয়তো বমি আসছে, কিন্তু এই সুলতানদের নিজের পূর্বপুরুষ ভাবা লোকের কাছে এটা একদম সাধারন ব্যাপার‌।