কতিপয় বিশেষজ্ঞ মতামত-

১. ইসলামী জঙ্গিবাদ ঠেকাতে হলে বিবস্ত্র চ্যানেল বন্ধ করতে হবে। – মাদ্রাসা শিক্ষকসম্প্রদায়।
২. ইসলামী জঙ্গিবাদ ঠেকাতে হলে কাশ্মীর আর ফিলিস্তিনের স্বাধীনতা দিতে হবে। – সলিমুল্লাহ খান।
৩. ইসলামী জঙ্গিবাদ ঠেকাতে হলে আওয়ামী ফ্যাসিবাদ থামাতে হবে। – জোনায়েদ সাকী।
৪. ইসলামী জঙ্গিবাদ ঠেকাতে হলে আমেরিকা আর ইসরাইলের পতন ঘটাতে হবে। – অন্যান্য বাম।
৫. ইসলামী জঙ্গিবাদ ঠেকাতে হলে বিএনপিকে ধ্বংস করে তাদের আবার ভোট দিয়ে জয়যুক্ত করতে হবে। – আওয়ামী লীগ।
৬. ইসলামী জঙ্গিবাদ ঠেকাতে হলে বিএমপিকে ক্ষমতা দিতে হবে। – বিএনপি।
৭. ইসলামী জঙ্গিবাদ ঠেকাতে হলে মদিনাসনদ বাস্তবায়ন করতে হবে। – শেখ হাসিনা।
৮. ইসলামী জঙ্গিবাদ ঠেকাতে হলে স্কুল কলেজে বেশি বেশি ইসলাম ও জিহাদের শিক্ষা দিতে হবে। – আলেম ওলামা বৃন্দ।

অর্থাৎ, আমরা বুঝতে পারলাম, ইসলামী জঙ্গিবাদের জন্য ইসলাম ছাড়া আর সব কিছুই কমবেশি দায়ী। জঙ্গিদের তেমন কোন দোষ নেই। তারা কখনো বিবস্ত্র নারী দেখে, কখনো কাশ্মীর ফিলিস্তিনের মুক্তি চেয়ে, কখনো আওয়ামী ফ্যাসিবাদ ঠেকাতে, কখনো আমেরিকা ইসরাইলের পতন ঘটাতে মাঝে মাঝে মাথা গরম করে জবাই টবাই করে ফেলছে।