তারা কি সকলকেই হিন্দু জঙ্গি!

‘সন্ত্রাসবাদীদের কোন ধর্ম নেই’ কথাটা সত্য, নাকি নিজেদের ছাল বাঁচানোর বা ভোট ভোট-মুখী এক সূক্ষ্ম কৌশল? আজকাল ‘হিন্দু জঙ্গি’ শব্দ ব্যবহারের ব্যাপকতা ও ধরণ থেকেই বিষয়টি স্পষ্ট হয়ে যায়। বহু দেশেই হিন্দুর বসবাস নিবাস। কিন্তু সে রকম কোনও অভিযোগ বা তকমা ভারত ছাড়া অন্য দেশ থেকে খুব একটা শোনা যায় না। তবে ইদানীং ‘হিন্দু জঙ্গি’ শব্দটি প্রতিষ্ঠিত করার ব্যাপারে মিডিয়ার প্রচেষ্টা বেশ জোরালো এবং তা চেটেপুটে খাচ্ছে তথাকথিত সেক্যুলার তকমাধারী রাজনৈতিক দলগুলো। জানি না গো-রক্ষকদের জঙ্গি-তালিকাভুক্ত করা হয় কি না, করলে তাদেরও যে ধর্মচ্যূতি ঘটবে তা বলাই বাহুল্য।

নবতম সংযোজন সম্প্রতি কাশ্মীরে এক ‘হিন্দু জঙ্গিকে ‘লিবারেল মিডিয়া’ আবিষ্কার করেছে ! মিডিয়ার উল্লেখ এ কারণেই, কারণ তারা ফলও করে প্রচার করে ‘জঙ্গিদের কোন ধর্ম নেই’। কিন্তু তারাই এখন লিখছে ‘হিন্দু জঙ্গি সন্দীপ’ — সন্দীপ মুসলিম হয়ে, ‘আদিল’ নাম নিলেও সে হিন্দুই থেকে যায়, কারণ সে জঙ্গি হিসেবে ধৃত হয়েছে। বছর খানেক আগে আইএসের সিদ্ধার্থ ধর নামের ভারতীয় বংশোদ্ভূতকে নিয়ে এই রকম খেলা হয়েছিল। সে মুসলিম মেয়েকে বিয়ে করে ধর্মান্তরিত হয় এবং জঙ্গি ভাবাপন্ন হয়ে গিয়েছিল সেটা চেপে রেখে ‘সিদ্ধার্থ ধর’ ‘আইএসের `হিন্দু জঙ্গি’ এভাবেই ফলাও করে প্রচার করেছিল মিডিয়া।

তাহলে এই সিদ্ধান্তের উপর ভিত্তি করে বলা যেতেই পারে — ভারতীয় উপমহাদেশে কোনও কালে হিন্দু থেকে যারা ইসলাম তথা অন্য কোনও ধর্ম গ্রহণ করেছিল এবং তার মধ্যে যারা সন্ত্রাসবাদী কার্যকলাপের সঙ্গে যুক্ত তারা সকলকেই ‘হিন্দু জঙ্গি’ !!!