প্রধানমন্ত্রী ‘নরেন্দ্র দামোদর মোদি’
ডাঃ মৃনাল কান্তি দেবনাথ

গত কয়েকদিনের মধ্যে দুটি খবর নিশ্চয়ই অনেকের চোখে পড়েছে। আবার অনেকে হয়তো সেই খব্রের দিকে চোখ মেলে তাকান নি।
প্রথম খবর, বিগত ১৩ বছরে এই প্রথম, ‘মুডি’জ’ ভারতের বর্তমান অর্থনৈতিক অবস্থা পর্যালোচনা করে আমাদের দেশের অর্থনৈতিক অবস্থাকে এমন জায়গায় উন্নীত করেছে, যার জন্য অদুর ভবিষ্যতে অনেক বিদেশী   সংস্থ ভারতে অর্থ বিনিয়োগ করবে। অর্থ বিনিয়োগ মানেই কর্ম সংস্থান, যা কিনা বর্তমান প্রজন্মের শিক্ষিত তরুন তরুনীর কাছে এক সুখবর।

আমাদের দেশী মিডিয়া, গত ৮ই নভেম্বর থেকে  ভারতের অর্থনৈতিক অবস্থাকে এমন এক পর্য্যায়ে বর্ননা দিচ্ছেন যাতে মনে হয় আমাদের সমুহ সর্বনাশ। আমি অর্থনীতি কিচ্ছু বুঝিনা। কিন্তু ‘মুডি’জ এর ওপর ভরসা আছে। তারা হঠাৎ করে আমাদের প্রধানমন্ত্রী মোদিজীকে খুব ভালো বেসে ফেলেছে বলে আমি মনে করিনা। আর মোদিজী ওই সংস্থাকে খরিদ করে নিয়ে ছেন এই কথা পাগোলে ছাড়া কেউ বলবে না। তা আমাদের দেশে পাগোল আর গদ্দার তো কম নেই। সুতরাং !!!!!!!!!

দ্বিতীয় খবর টি আরো মারাত্মক। বিগত ৩ বছরে মোদিজীর বিদেশ সফর নিয়ে কম কটুক্তি মিডিয়াতে দেখিনি শুনিনি। খবরের কাগজে দেখলাম, আমেরিকান বিদেশ মন্ত্রক মনে করে, চীনের সংগে চোখে চোখ দিয়ে কথা বলার মতো দেশ নায়ক একজনই আছেন আর তিনি আমাদের প্রধান মন্ত্রী ‘নরেন্দ্র দামোদর মোদি’। কোন পাগলে বলবে, মোদিজী আমেরিকান বিদেশ মন্ত্রক ও কিনে নিয়েছেন??????? আজ চীন ‘ডোকালাম’ নিয়ে আলোচনা চায়। অথচ ক’দিন আগে সে কি হুমকি। মনে হচ্ছিলো এবারে চীন আমাদের গিলে খাবে। তা মোদিজীর ভারত কে গিলে খাওয়ার চেষ্টা করলে গলায় আটকে যাবে।

মোদিজীর প্রধানমন্ত্রীত্ব আর নেহেরুর প্রধানমন্ত্রীত্ব এক নয়, সেটা চীন অন্তত বুঝেছে। আপনারা কি বলেন, কিছু বুঝছেন??????