ঈদের ছুটি ৩ দিন থেকে বাড়িয়ে ৬ দিন করার দাবী ছিল সরকারী কর্মকর্তাদের। একই দাবী গেল বছর করেছিল হেফাজত ইসলামের নেতারা। এ বছর মন্ত্রণালয় ৬ দিনের ছুটির জন্য প্রস্তাব করলেও শেষ পর্যন্ত শুনেছি সেটা পাশ হয়নি। কিন্তু আমার হিসাব দেখতে পাচ্ছে অদূর ভবিষ্যতে অন্তত তিনটি ছুটি ঈদের সঙ্গে এড করা সম্ভব হবে। যেহেতু ততদিনে দূর্গা পুজা, খ্রিস্টমাস, বুদ্ধপূর্ণিমা পালন করার মত কোন সম্প্রদায় আর বাংলাদেশে থাকবে না তাই সেই ছুটিগুলো ঈদের ছুটিতে যোগ করে দেয়া যাবে…।

ভাবুন তো একবার, কিশোর কুমার নামের একজন অসাম্প্রদায়িক মানুষের গড়া বিদ্যানন্দ ফাউন্ডেশন প্রত্যেক বছর এক টাকা মূল্যে দেশের ৩০০০ দরিদ্রদের মাঝে ইফতার আর সেহরী বিতরণ করে যাচ্ছে। রামপুরার বৌদ্ধ বিহারের ইফতার বিতরণ, ইসকন আর এবছর শিখ মন্দিরে মুসলিমদের ইফতার বিতরণে ঘটনাগুলোর কথা একবার ভাবুন। ভালোবাস কি এক তরফা হয়? বাংলাদেশের হিন্দু ছেলেরা সিলেটে ঈদের নামাজের নিরাপত্তায় স্বেচ্ছাসেবক হিসেবে খেটে যদি ফি বছর দেখে তাদের দুর্গা মূর্তি ভেঙ্গে ফেলছে- কেমন লাগবে তাদের?

এ যেন এক মগের মুল্লুক- রাষ্ট্র প্রশাসন কেউ হিন্দুদের মন্দিরের নিরাপত্তা দিতে পারে না! রথ যাত্রায় মাইক ব্যবহার নিষিদ্ধ করেছে সরকার- এবার তো পালা ছিল সেইসব শান্তিবাদী দাবী করা মুসলমানদের এগিয়ে আসার। কেন তারা কথা বলছে না? কেন সরকারের আচরণে তারা প্রতিবাদ করছে না? রামুর বৌদ্ধ বিহারে যারা হামলা করেছিল, মালোপাড়ায় যারা হামলা করেছিল তারা ছিল হিন্দুদের প্রতিবেশী। মাসি-পিসি বলে যাদের সকালে ডেকে ডেকে হেসে হেসে কথা বলেছিল তারাই রাতের বেলা রুদ্রমূর্তি ধরে তাদের মারতে এসেছিল…। কিশোর কুমার কিংবা রামপুরার বৌদ্ধ বিহার অথবা সিলেটের সেই তরুণদের আমরা কোথায় ঠেলে দিচ্ছি? ভালবাসা তো এক তরফা হয় না।

http://bn.mtnews24.com/exclusive/169607/%E0%A6%B0%E0%A6%BE%E0%A6%9C%E0%A6%A7%E0%A6%BE%E0%A6%A8%E0%A7%80%E0%A6%A4%E0%A7%87-%E0%A7%A7-%E0%A6%9F%E0%A6%BE%E0%A6%95%E0%A6%BE%E0%A7%9F-%E0%A6%87%E0%A6%AB%E0%A6%A4%E0%A6%BE%E0%A6%B0-%E0%A6%B8%E0%A7%87%E0%A6%B9%E0%A7%87%E0%A6%B0%E0%A6%BF-%E0%A6%A6%E0%A6%BF%E0%A6%9A%E0%A7%8D%E0%A6%9B%E0%A7%87-%E0%A6%B9%E0%A6%BF%E0%A6%A8%E0%A7%8D%E0%A6%A6%E0%A7%81-%E0%A6%B8%E0%A6%82%E0%A6%97%E0%A6%A0%E0%A6%A8-