২০১৮ তে বাংলায় গৃহযুদ্ধ লাগতে পারে-২০০৮ এ  লিখেছিলাম -সেই দিকেই কিন্তু এগোচ্ছে!
———————————————————————————————-
অনতিবিলম্বে  মমতা তার -শান্তি (গেস্টাপো)বাহিনী র আইডিয়া পরিত্যাগ করুক!
নতুবা এরাই পাকিস্তানী রাজাকার বা হিটলার এর গেস্টাপো বাহিনীর মতো রাজ্য অশান্তি সৃষ্টি করবে! ছাত্র যুবা মানে বেকার রা ২ পয়সা ইনকাম এর লোভে-পড়াশুনা ছেড়ে – “পার্টি র পুলিশ” লেলিয়ে দিয়ে মানুষ কে হেনস্থা করবে- নিজেদের ইনকাম বাড়াবে ! ভাষণ শুনে ও পত্রিকা পড়ে যা বুঝলাম- নব গেস্টাপো বা রাজাকার বাহিনীর কাজ হবে, পাড়ায় কে আসে, কি বলে, কি করে তার খবর নেয়া! যদি তাদের মনে হয় ,যে তারা অশান্তি করবে,  তা হলে থানায় খবর দেবে ও পুলিশ  এর সাথে কাজ করবে! হয়ত যে কোনো লোকের বাড়ি তে গিয়ে এরা  আইনত পাতন ধরতে পারবে!

আশা করি রাজ্য সরকার এদের কে নিয়োগপত্র দেবে ও এদের কাজ লিখিত ভাবে ঠিক করে দেবে ! এরা যাদের  বিরুদ্ধে থানায় নালিশ করবে, সেই নালিশ প্রমান কি করে করবে? ভিডিও অডিও রেকর্ড? কারো অনুমতি ছাড়া কি কারো বক্তব্য রেকর্ড করা যায়? কোর্ট কি সেটা গ্রহণ করবে?  তার মানে ২ জন লোক কথা বললেই, এরা রেকর্ড করতে পারবে কথা বার্তা ? কোন আইনে? না এরা সন্দেহভাজন কে  টেনে হিছড়ে মারধর করে থানায় নিয়ে হস্তান্তর করবে? সংবিধান বা আইন কি কাউকে এই অধিকার দেয় ?

হিন্দু মুসলিম বিদ্বেষ সন্দেহ আরও বাড়বে! রাজ্য আগুন জ্বলতে পারে! থামানো আর কোনোদিন  সম্ভব হবেনা। মাওবাদী রা সেই সুযোগ নেবে! ২০০৮ সালে আমি লিখেছিলাম  ২০১৮ তে বাংলায় গৃহযুদ্ধ লাগতে পারে! সেই দিকেই কিন্তু এগোচ্ছে!