বাবরি মসজিদের পর এবার তাজমহল নিয়ে বিতর্ক—-

Spread the love

বাবরি মসজিদের পর এবার তাজমহল নিয়ে বিতর্ক—-
.
নয়াদিল্লি, ১০ আগস্ট (পিটিআই): শাহজাহান নির্মিত তাজমহল স্মৃতিসৌধ, নাকি মুঘল সম্রাটকে রাজা রাজপুতের দেওয়া উপহার — শিব মন্দির? কেন্দ্রীয় সংস্কৃতি মন্ত্রককে বিষয়টি পরিষ্কার করতে বলল কেন্দ্রীয় তথ্য কমিশন বা সিআইসি।
তথ্য জানার অধিকার আইনে ভারতীয় পুরাতত্ত্ব সর্বেক্ষণের (এএসআই) দ্বারস্থ হন বি কে এস আর আয়ানগর। আরটিআইয়ের মাধ্যমে তিনি জানতে চান, আগ্রার সৌধ কি তাজমহল, না ‘তেজো মহালয়’? এএসআইকে তিনি লেখেন, ‘অনেকের মতে তাজমহল হল তেজো মহালয়। অর্থাৎ, এটি শাহজাহান তৈরি করেননি। এটা তাঁকে রাজা মান সিং উপহার দিয়েছিলেন। তাই এ বিষয়ে প্রামাণ্য নথির সঙ্গে বিশদে জানান।’ জবাবে এএসআই জানিয়েছিল, তাদের কাছে এ ধরনের কোনও তথ্য নেই। এছাড়াও, সপ্তদশ শতকের সৌধটির নির্মাণ সংক্রান্ত তথ্য, তার ঘর সংখ্যা, গোপন কুঠুরি এবং নিরাপত্তার স্বার্থে যে ঘরগুলি বন্ধ রাখা হয়, সেবিষয়েও জানতে চান আয়ানগর।
আর এই ঘটনাতেই তাজমহল বিতর্কে চলে এসেছে সিআইসি। আর সেই বিতর্কের অবসান ঘটাতে সম্প্রতি এক নির্দেশিকায় বলকে সরকারের কোর্টে ঠেলে দিয়েছে তারা। সংস্কৃতি মন্ত্রককে সাদা সৌধের ইতিহাস সম্পর্কে রহস্যের অবসান ঘটাতে বলেছেন তথ্য কমিশনার শ্রীধর আচার্যুলু। এছাড়া, ঐতিহাসিক পি এন ওক এবং আইনজীবী যোগেশ সাক্সেনার দাবিরও ব্যাখ্যা চেয়েছে কমিশন। ‘তাজমহল: দ্য ট্রু স্টোরি’ বইয়ে ওক লিখেছেন, তাজমহল হল আসলে রাজপুত রাজার তৈরি শিব মন্দির। যা পরে গ্রহণ করেন শাহজাহান। এই দাবিতে ২০০০ সালে সুপ্রিম কোর্টেও গিয়েছিলেন লেখক। যদিও, ওকের সেই দাবি খারিজ করে দিয়েছিল শীর্ষ আদালত। প্রসঙ্গত, তাজমহলের এই বিতর্ক নিয়ে সুপ্রিম কোর্টসহ দেশের বিভিন্ন আদালতে মামলা হয়েছে। যার কিছুর এখনও নিষ্পত্তি হয়নি।
#বর্তমান