নাদজেত ফেলা নামের এক নার্স বলছেন, ‘‘আমি নেকাব না পরার সিদ্ধান্ত নিয়েছি, কিন্তু যারা এটা পরেন তাদের আলাদা করে দেখার বিষয়টি আমাকে আহত করে৷’’

খুবই অদ্ভুত যুক্তি! নিজেদের আলাদা করে দেখানোর জন্যই তো এরা নেকাব হিজাব বোরখা পরে। এগুলো কোন জাতির সংস্কৃতিগত পোশাক নয়। এগুলো না পড়লে মহিলাদের মাথার চুল সাপ হয়ে কামড়াবে কারণ চুল দেখিয়ে তারা পুরুষদের কামার্ত করে তুলেছিল!  ইরানে ইসলামিক বিপ্লবের পর সেখানে নারীদের মাথায় কাপড় না দিলে জেল খাটতে হয়। ইসলামী বিশ্বের এই নারী নিপীড়নগুলো পশ্চিমে সংঘবদ্ধভাবে এ্যাপলাই করতে যেয়ে যখন বাধার সম্মুখীন হয় তখন তার নাম হয় ” ইসলাম বিদ্বেষ ” । ফ্রান্সে সেই জিকির গেয়েই সর্ববৃহৎ সমাবেশ করেছে মুসলিম কমিউনিটি। যাদের প্রধান পৃষ্টপোষক ফরাসি কমিউনিস্ট পার্টি!

ফ্রান্সসহ ইউরোপের এতগুলো দেশে হিন্দু বৌদ্ধ খ্রিস্টান ইহুদি বসবাস করে – সবাইকে বাদ দিয়ে কেন শুধু মুসলিমদের বিরুদ্ধে মানুষ ভীতিপ্রদ হয়? কেন সবাই তাদেরকে সন্ত্রাসী মনে করে?  কেন মুসলমানরাই খালি নিজেদের জন্য ধর্মীয় রাষ্ট্র চায়? ইসলাম নিয়ে কি মানুষ অমূলক ভীতি পোষণ করে?