Home Bangla Blog ৩৩ কোটি দেবতা : ধর্মগ্রন্থ নিয়ে কথা বলুন, ধর্ম জানুন, অন্যকে জানান।-দুরর্ম

৩৩ কোটি দেবতা : ধর্মগ্রন্থ নিয়ে কথা বলুন, ধর্ম জানুন, অন্যকে জানান।-দুরর্ম

964
৩৩ কোটি দেবতা
৩৩ কোটি দেবতা

৩৩ কোটি দেবতা: প্রায়শই আপনি লোকদের বলতে শুনবেন যে, কিছু লোক বিশ্বাস করে যে হিন্দু ধর্মে মোট ৩৩ কোটি দেবতা রয়েছে। অন্য দিকে এমন কিছু লোক আছেন যারা বিশ্বাস করেন যে হিন্দু ধর্মে ৩৩ কোটি নয়, ৩৩ প্রকার দেবদেবী রয়েছেন। 

আমরা এখন জানি যে প্রশ্নটি অবশ্যই আপনার মনে এলো যে এই দুটি সত্যের মধ্যে কোনটি সত্য। আজ অবধি এই প্রসঙ্গে অনেকেই বিভ্রান্ত। কিছু লোক একে অপরের সাথে এ নিয়ে তর্ক শুরু করে। তবে প্রশ্নটি হচ্ছে, সব কি সত্য? 

 

এর সাথে সম্পর্কিত নির্দিষ্ট তথ্য পড়ার পরে সম্ভবত আপনারা অনেকে বিভ্রান্ত হতে পারেন। আসলে, হিন্দু ধর্ম গ্রন্থে, কোটি দেবভাষা একটি সংস্কৃত শব্দ, যার অর্থ টাইপ বা ধরণ। এর অর্থ হিন্দু ধর্মে ৩৩ কোটি নয়, ৩৩ ধরণের বা প্রকার দেবদেবীর উপস্থিতি রয়েছে। সুতরাং আপনাদের মধ্যে যারা আজ অবধি ভেবে বসে আছেন  যে হিন্দু ধর্মে 33 কোটি দেবদেবী আছে,  তারা এই বিষয়টি আপনার মন থেকে মুছে ফেলুন।

ধর্ম, ৩৩ কোটি দেবী, ৩৩ দেবী দেবতা, হিন্দু দেবীর দেবতার প্রকার, হিন্দু ধর্মের প্রকার, জ্যোতিষ বিদ্যা, জ্যোতিষ জ্ঞান, হিন্দিতে জ্যোতিষ, জ্যোতিষ
হিন্দু ধর্মে ৩৩ কোটি নয়, তবে ৩৩ ধরণের দেবদেবী রয়েছেন। 

কি কি সেই দেবদেবীর ধরণ?

12 প্রকার রয়েছে –

আদিত্য, ধাতা, মিত্ত, আর্যামা, শকরা, বরুণ, অঙ্কভাগ, বিভাসওয়ান, পুষা, সাবিতা, তবস্থ এবং বিষ্ণু

8 ধরণের রয়েছে –

ভাসু, ধর্মধ্রুব, সোম, আহ, অনিল, আনল, প্রত্যুষ এবং প্রভাস।

11 প্রকার রয়েছে –

রুদ্র, হরভুরুপ, ত্রিম্বক, অপরাজিতা, ব্রিশকাপি, শম্ভু, কাপরদী, রেভাত, মৃগব্যৈধ, শারভা এবং কাপালী।

2 ধরণের রয়েছে –

অশ্বিনী ও কুমার-

পাঞ্জাবকেশারি, ধর্ম, ৩৩ দেবী দেবতা, ৩৩ দেবী দেবতা, হিন্দু দেবীর দেবতার প্রকার, হিন্দু ধর্মের প্রকার, জ্যোতিষ বিদ্যা, জ্যোতিষ জ্ঞান, হিন্দিতে জ্যোতিষ, জ্যোতিষ
৩৩ দেবী দেবতা

এইভাবে, 12 + 8 + 11 + 2 = 33 শ্রেণীর দেবতা ছিল।

এগুলি ছাড়াও আরও জানুন-

দু’পক্ষ: কৃষ্ণপক্ষ এবং শুক্লপক্ষ

তিনটি লোক: দেব লোক, পিতৃলোক, সেজে লোক

চার যুগ : সত্যুগ, ত্রেতাযুগ, দ্বারপুগ, কলিযুগ

চর ধাম: দ্বারকা, বদরিনাথ, জগন্নাথপুরী, রামেশ্বরম ধাম

চর পীঠ: শারদা পিঠ (দ্বারকা) জ্যোতিষ পীঠ (যোশীমথ বদ্রিধাম) গোবর্ধন পীঠ (জগন্নাথপুরী) শ্রেনগরী পিঠ

 

চারটি বেদ: ঋগ্বেদ, অথর্ববেদ, যজুর্বেদ, সামবেদ

চারটি আশ্রম: ব্রহ্মাচার্য, গৃহস্থ, বনপ্রস্থ, সন্ন্যাস

চার বিবেক: মন, বুদ্ধি, জ্ঞান, অহং

পঞ্চ গাব্য: ঘি, দুধ, দই, গো-মূত্র, গোবর

পাঁচটি উপাদান: পৃথিবী, জল, অগ্নি, বায়ু, আকাশ

ছয় দৃষ্টি: বৈৎসিকা, ন্যায়, সংখ্যা, যোগ, পূর্ব মিসানসা, দক্ষিণ মিসানসা

সপ্তষি : বিশ্বামিত্র, জামাদগনি, ভরদ্বজ, গৌতম, অত্রি, ভাসিষ্ঠ এবং কাশ্যপা

সপ্তা পুরী: অযোধ্যা পুরী, মথুরা পুরী, মায়া পুরী (হরিদ্বার), কাশী, কাঞ্চি (শিন কাঞ্চি – বিষ্ণু কাঁচি), অবন্তিকা এবং দ্বারিকাপুরী

আট যোগ: যম, নিয়াম, আসন, প্রাণায়াম, প্রত্যাহার, ধরনা, ধ্যান ও সমাধি

 

 

10 দিক: পূর্ব, পশ্চিম, উত্তর, দক্ষিণ, উত্তর, দক্ষিণ, উত্তর, আগুন, আকাশ এবং হেডস

12 মাস: চৈত্র, বৈশাখ, জ্যেষ্ঠ, আষাঢ, শ্রাবণ, ভদ্রপদ, আশ্বিন, কার্তিক, অগ্রাহণ, পৌষ, মাঘা, ফাল্গুন

১৫ তারিখ: প্রতিপাদ, দ্বিতীয়, তৃতীয়, চতুর্থী, পঞ্চমী, ষষ্ঠী, সপ্তমী, অষ্টমী, নবমী, দশমী, একাদশী, দ্বাদশী, ট্রায়োদাশি, চতুর্দশী, পূর্ণিমা, অমাবস্যা

প্রতীক: মনু, বিষ্ণু, অত্রি, হরিত, যজ্ঞবল্ক্যা, উশানা, অঙ্গিরা, যম, অপস্তম্ব, সর্বত, কাটায়ায়ন, ব্রহস্পতি, পরাশর, ব্যাস, শঙ্খ্য, লিখা, দক্ষিণ, শততপ, বশিষ্ঠ।

 

আরো পড়ুন….

 

%d bloggers like this: