চার্বাক দর্শন ও বর্তমান সমাজ। অনেকেই বলেন চার্বাক নামে কোনো ঋষি ছিলেন না। কারন তার প্রচলিত দর্শনের কোনো প্রামানিক লিখিত কিছু পাওয়া যায় না।

শাস্ত্র বলে,চার্বাক যখন তার ভোগসর্বস্ব ‘জীবন ধারন প্রনালী’ প্রচার করেছিলেন তখন কোনো লেখার প্রচলন হয়নি। ভুর্জপত্র (গাছের বাকল) দিয়ে লেখার ব্যাবহার তার পরে আসে। পরবর্তি অনেক লেখায় চার্বাকের কথা এবং তার দর্শনের কথা বিশদ বলা আছে।

বর্তমান কালের চার্বাক (রাজনীশের — পুনাতে যার শুরু আমেরিকায় শেষ) কি অবস্থা হয়েছিলো ভাবুন। আজ রাজনীশের সেই রম রমা আশ্রম আর নেই। শাম্মী কাপুর, বিনোদ খান্নার মতো ব্যাক্তিত্ব আর কেউ সেখানে বেলেল্লা পানা করতে যায় না।

কিন্তু হাল আমলের J N U আছে, যাদবপুর আছে, চার্বাক দের রাজনৈতিক দল আছে যারা ৩৪ বছর রাজ্য শাসন করেছে, বর্তমানে অন্য নামে রাজ্য শাসন করছে।।

মুম্বাই, টালিগঞ্জের সিনেমা শিল্প আছে। সর্বত্র চলছে সেই চার্বাক দর্শন। চার্বাক ঘুরে বেড়াচ্ছে তার শিষ্য সামন্ত নিয়ে সুন্দর বন থেকে দার্জিলিং অবধি। একে একে ভোট জিতে শাসন ক্ষমতা পাকা করছে। তার শিষ্য সামন্ত তাকে প্রতি ইলেকশানে বিপুল ভোটে জেতাচ্ছে।

পাড়ায় পাড়ায়, গ্রামে গঞ্জে। কোথায় না আজ “ঋনং কৃত্ব্যা ঘৃতং পিবেত” চলছে????? কলকাতা এবং শহরতলীর পান শালা ( আমি বলি শুড়ী খানা), সন্ধ্যা হলেই গ্রামে গঞ্জে “মদের ঠেক” গুলো দেখুন, পাড়ায় পাড়ায় মদ খাবার জন্য ক্লাব গুলোতে সরকারী অনুদানের বহর দেখুন।

মদ খেয়ে মারা গেলে, ধর্ষিতা হলে বিবাহিতা অবিবাহিতা ভেদে প্রশাসনিক স্তরে পুরষ্কারের বহর দেখুন। বাংলাদেশ থেকে ভারতে এসে খ্রীষ্টান চার্চের ৭২ বছর নান কে ধর্ষন করার পর তার সমর্থনে মিছিল দেখুন, আর ডাকসাইটে মন্ত্রীর মন্তব্য স্মরন করুন, মুখ্য প্রশাসনিকের ভিজিটের ছবি দেখুন। ভোটের সময় বুথ গুলোর আশ পাশ লক্ষ্য করুন, মোটর সাইকেল বাহিনীকে দেখুন।

আজ চার্বাকের শিষ্য বাদ দিলে ৫% মানুষ ও চোখে পড়বে না আপনার আশ পাশে। এর পরেও স্বীকার করবেন না “চার্বাক দর্শন” ছিলো কি না?? আছে কি নেই???

বর্তমান যুগের চার্বাক রা থাকে বামপন্থী দুনিয়ায়, আর ভোগ পন্থী দুনিয়ায়। বই পড়ে চার্বাক শিখতে হয় না । টি ভি, সিনেমা, সিরিয়াল, সিটি সেন্টার, প্যান্টালুন, আর রাস্তার পাশে টানানো অসংখ্য হোর্ডিং দেখুন আর শিখুন।

প্রাচীন চার্বাককে তর্ক যুদ্ধে হারিয়ে ছিলেন, দেব গুরু বৃহষ্পতি। হেরে গিয়ে নিয়ম মেনে চার্বাক নিজেই তার পথ ত্যাগ করেছিলেন এবং বৃহষ্পতির শিষ্যত্ব গ্রহন করে সনাতনী হয়ে যান। তার অসংখ্য লক্ষ লক্ষ শিষ্যকে বলেছিলেন, “আমি মিথ্যা ছিলাম, তোমরা আমার শেখানো পথ ত্যাগ করো”।

বর্তমান কালের চার্বাক রা এবং তাদের গুরু সেই কথা বলবে না কোনোদিন কারন আজকের যুগে আর কোনো গুরু বৃহষ্পতি নেই। যতোদিন শিষ্যরা আছে, পাড়ায় পাড়ায় গ্রামে গঞ্জে ততোদিন এই চার্বাকেরা হারবে না। বাকি ৫% যাবে জেলে বা মরে শেষ হবে।

 

আর পড়ুন…..

 

চার্বাক দর্শন ও বর্তমান সমাজ
ডাঃ মৃনাল কান্তি দেবনাথ