লিখিকা,
Rupkatha mukherjee

ধর্মান্তরের অপচেষ্টা!!!!
ঘটনা টি ঘটে আমার সাথে কিছুদিন  আগে।আমি হোস্টেল এ থাকি।আমার এক বান্ধবীর জন্মদিনে ওর বাসা থেকে খাবার পাঠিয়ে ছিল।সেটা পাশের বাসার ফ্রিজ এ রাখতে গেছিলাম।ওই বাসার uncle জিজ্ঞাস করলো রোজা আছি কিনা।আমি বললাম আমি হিন্দু।ওমনি শুরু করে দিল…………

Uncle:  শোন,তুমি এখন বড় হইছ।বাবা মা এক ধর্ম পালন করে বলে যে তোমার ও সেই টা পালন করা লাগবে এমন কোনো কথা নাই।এখনো সময় আছে।কলেমা পড়ে মুসলিম হয়ে যাও।মুরতি পূজা কে ইসলাম সমর্থন করে না।কত গুনা হই জান???তুমি যদি একবার কলেমা পড় তাহলে তুমার বেহেশত নসিব হবে।সকল গুনাহ মাফ

আমি: আমার স্বর্গ আছে না??বেহেশত দিয়া আমার কি হবে??আমার ধর্ম আমাকে পূজা করার স্বাধীনতা দিয়েছে।আমি আমার ঈশ্বর কে মানি।তার পূজা করি।এতেই আমার স্বর্গ লাভ হবে।আর আমি তো জিহাদ এর নাম করে মানুষ খুন করে বেরাই না যে সেই অপরাধ চাপা দিতে কলেমা পড়া লাগবে

Uncle: তুমি বুঝতে পারছনা….জানো,আমার এক ভাই এক হিন্দু মেয়ে কে বিয়ে করেছে।মেয়েটা কলেমা পড়ে বল্ল “আমি এতদিন অন্ধকারে ছিলাম।আজ আলোর পথ পেলাম”।ইসলাম ই একমাত্র আলোর পথ

আমি: এটা ওই মেয়ের দুর্ভাগ্য।হিন্দু ধর্ম মতে আমাদের ৫ টি মহাপাপ আছে যা ক্ষমার অযোগ্য। ধর্মত্যাগ তার মধ্যে  একটি।অনেক বড় পাপ করছে মেয়েটা।যে নিজের ধর্ম ই মানেনি সে আপনার ধর্ম কি মানবে??

Uncle: তুমি জানো,রোজ কেয়ামত এর দিন আল্লাহ তোমার মুখ বেধে দিবে।জিজ্ঞাস করবে তুমি কি নামায পরছ??রোজা রাখছ??কলেমা পড়ছ??
তখন তোমার হাত বলবে,এ নামাজ পড়েনি।পা বলবে এ রোজা রাখেনি। সবাই তোমার বিরুদ্ধতা করবে।তখন কি জবাব দিবে তুমি??

আমি: আমার ঈশ্বর অন্তযামী।আমি কি কোনটা করছি আর কোনটা করিনি সেটা জানার জন্য তার আমার হাত,পা,মাথার কাছে জিজ্ঞাস করা লাগবে না।তিনি সব এ জানেন।সেই অনুযায়ী ই আমার বিচার হবে

Uncle: তুমি কি জানো,কুর আন বিশ্ব এর একমাত্র সত্য ধর্মগ্রন্থ?জীবন এর সবকিছু এখানে পাবা।পথ প্রদর্শন একমাত্র এতেই পাবে

আমি: আপনি কি জানেন বেদ সবথেকে আদি ধর্মগ্রন্থ??বেদ,গীতা, উপনিষদ,পূরাণ এগুলা সম্পর্কএ আপনার কোনো আইডিয়া নাই বলেই আপনি আসব বলছেন।আপনি জানেন আমাদের ধর্ম কি বলে?? “জীবে প্রেম করে যেই জন সেই জন সেবিছে ঈশ্বর “
এত মহান কথা যেই ধর্মগ্রন্থ তে লেখা তার থেকে ভাল কি র কিছু তে থাকতে পারে??আচ্ছা,আপনি আল্লাহ কে ফিল করছেন কখনো???

Uncle: বলো কি??আল্লাহ কে ভয় করো।উনি সবকিছুর মালিক
উনাকে ভয় না পেলে গুনাহ হবে

আমি: uncle আল্লাহ ই যদি আপনার সবকিছু হয় তাহলে তাকে এত ভয় কেন?আপনি আপনার মা কে ভয় পান??পান না তোহ।আল্লাহ কে মা ভাবুন না??

Uncle: তুমি ভাবতে পারো তোমার ঈশ্বর কে এমন??

আমি: কেন পারব না??অবশ্যই পারি।আমি ঈশ্বর কে অনুভব ও করতে পারি আমার মধ্যেই।যখন আমি কোন রোগী কে রক্ত দেই তখন আমি ঈশ্বর কে অনুভব করি।আমি যখন কোনো ভাল কাজ করি ঈশ্বর থাকেন আমার সাথে।প্রতিটি জীব এর মাঝেই ঈশ্বর আছেন

Uncle: তুমি এখনো ছোট।ভাল বোঝনা।তোমাকে একটা গল্প বলি। (সংক্ষেপে) মহানবীর একজন অনুসারী দুপুরে ১২০০ রুটি খেত।মহানবী তাকে একদিন দিলেন ৩ টা রুটি খেতে।প্রথমে দেখে তার খুব রাগ হল।কিন্তু পরে দেখলেন ২ টা রুটি খেয়েই তার পেট ভরে গেছে আর থালায় তখনো ৫ টা রুটি।ওইদিন উনি কলেমা পড়ে ইসলাম ধর্ম গ্রহন করলেন

আমি: আপনি তো uncle বলছেন ১৪০০ বছর আগের কথা।আমি এখনকার কথা বলি আপনাকে……
ইন্ডিয়া তে আমাদের একটা তীর্থস্থান আছে।সেখানে একটা আগুনের আচে র উপর নয়টা হাড়ি বসানো হয় একটা র উপর একটা করে।সব কয়টা হাড়ি তে আক এ সময়ে ভাত হয়ে যাই,একই রকম স্বাদ,একই রকম সেদ্ধ হয়।আর সেই প্রসাদ এক পেয়ালা খেলেই ত্রিপ্তি তে পেট,মন ভরে যায়।আপনি যা লোকের মুখে শোনেন আমি তা নিজে দেখছি।তো সত্য কোনটা কে মানব??

তিনি তার পর ও সেই কলেমা, নামাজ নিয়ে লেকচার দিতেই লাগলেন। আমি চলে আসার সময় বললাম,ঈশ্বর এক ও অদ্বিতীয়। আমরা যাকে ঈশ্বর বলি আপনারা তাকেই বলেন আল্লাহ। কিন্তু ধর্ম আমার টাই শ্রেষ্ঠ। কেন জানেন??আমার ধর্ম তে নাই কোন জিহাদ,নাই কোন সন্ত্রাস,নাই কোন জঙ্গই।আমার ধর্মএ আছে শুধু শান্তি, মানবসেবা, আর অপরিসীম আনন্দ। আমি তো ধর্মত্যাগ করবই না,বরং আপনি এইসব ফালতু কাজ রেখে নামায কালাম করুন র পারলে মানুষ এর হেল্প করুন।এতে সোয়াব পাবেন।নমস্কার…….

……….পরদিন পাশেই এক দোকানে আবার দেখা।উনি আমার সাথে কথা বলা তো দূরে থাক,আমার দিকে চোখ তুলেও তাকাতে পারলেন না।অনেক খুশি হয়েছিলাম সেদিন।মনে হচ্ছিল আমি পেরেছি।কিছুটা হলেও পেরেছি……..

আমার লেখার মধ্যে ত্রুটি বিচ্যুতির জন্য ক্ষমা করবেন।

লিখিকা,
Rupkatha Mukherjee