কোনো আন্দোলনকে প্রতিষ্ঠা দিতে গেলে ঝুঁকি নিতেই হয়।।

Spread the love

কোনো আন্দোলনকে প্রতিষ্ঠা দিতে গেলে ঝুঁকি নিতেই হয় আর রাষ্ট্রের সুরক্ষার জন্যে মাঝে মাঝে ঝুঁকি নিতেই হয় !  মুসলিম লীগ  একসময় দেশভাগের জন্যে বিরাট ঝুঁকি নিয়েছিল !  জাতীয় নেতারা সবাই জিন্নার দেশভাগের আওয়াজকে  উপহাস করেছিল !  জিন্না  কিন্তু তার দাবী থেকে একচুলও সরেনি !  তার ফল সে পেয়েছিলো !
      পরাধীন ভারতে দেশমাতৃকাকে  দুটুকরো  করার আন্দোলন যদি সাফল্য পেতে পারে তবে আজ গণতান্ত্রিক  ধর্মনিরেপেক্ষ  ভারতবর্ষে ইউনিফর্ম সিভিল কোড ও কাশ্মীরে 370 নং ধারা বিলুপ্তিকরণের  জন্যে ঝুঁকি নেওয়া যাবে না কেন ?
       স্বাধীন দেশ আজও কেন অন্যায়ের কাছে সর্বদা হাতজোর করে আবেদন নিবেদন নীতি নিয়ে চলবে ? রাষ্ট্রের মঙ্গলের জন্যে প্রধানমন্ত্রী নোট বাতিলের  মতো ঝুঁকি নিয়েছিলেন !  সেই দু তিন মাস কত ঝড়  ঝঞ্ঝা  তাঁকে সামলাতে হয়েছে !  কত আন্দোলন কত বিরোধিতা …….কিন্তু আজ আর কেউ নোট বাতিল নিয়ে কোনো কথা বলে না !
       দেশের সমস্যাগুলোর  অন্যতম কারণ ধর্মের নামে পার্সোনাল ল ……কাশ্মীর সমস্যার প্রধান কারণ 370 নং ধারা !  কেন্দ্র সরকার অবিলম্বে সংসদে আইন করে এই ধ্বংসকারী  রাষ্ট্রের অমঙ্গলকারী  নীতিদুটিকে  বিসর্জন দিক !  জানি মৌলবাদী আর সেকুলার জীবগুলো খুব চেঁচাবে  , খুব আন্দোলন হবে , কিছু রক্তও ঝরতে  পারে কিন্তু এটাও জানি কিছুদিন পর সব ঠাণ্ডা হয়ে যাবে !
      বৈভবশালী রাষ্ট্রের জন্যে অনেক কঠিন সিদ্ধান্তই  নিতে হয় !  যারা আপোষকামী  তারা শুধু সাময়িক  ক্ষমতা ভালোবাসে !  কিন্তু রাষ্ট্র সমর্পিত  শাসক রাষ্ট্রের কল্যাণে  দধীচির মতো আত্মত্যাগে  প্রস্তুত থাকে !