একের পর এক লাভ জিহাদের শিকার করে হিন্দু মেয়েদের মুসলমান করা নিয়ে দিশাহারা হিন্দুরা যখন ভেবে পাচ্ছে না এই সমস্যা কিভাবে মোকাবেলা করা যায়, তখন যেন হিন্দু সমাজকে শিক্ষা দিতেই মুসলমানরা দেখালো তাদের মেয়েদের ভালবাসার জালে ফাঁসালে তারা হিন্দুদের সাথে কি করবে! বিহারের পশ্চিম চম্পারন জেলায় উদ্ধার হল ১৫ বছরের এক হিন্দু কিশোর ও তার মুসলিম বান্ধবীর দেহ। তাদের প্রেম মেনে নিতে না পেরে মেয়ের পরিবার দুজনকেই খুন করেছে বলে অভিযোগ। নৌতন এলাকার পাশাপাশি গ্রামে থাকত ওই দুই কিশোর কিশোরী। পড়ত আলাদা স্কুলে। সোমবার রাত থেকে ছেলেটি নিখোঁজ হয়ে যায়। আর ১৪ বছরের কিশোরীর দেহ উদ্ধার হয় খাপ টোলার কাছে চন্দ্রাবত নদীর তীর থেকে। নদীর ধারে গর্তের মধ্যে নুন মাখিয়ে ফেলে দেওয়া হয় তার দেহ, মাটি চাপা দিয়ে দেওয়া হয়। উদ্ধার হয় হিন্দু ছেলেটির দেহও, মেয়েটির বাড়ির ২ কিলোমিটার দূরে, সারেহ এলাকা থেকে। পুলিশ প্রাথমিকভাবে মনে করছে, মেয়েটির পরিবার খুন করেছে দুজনকে। তার দাদা আলাউদ্দিন আনসারি ও দুই কাকা গুলসানোভার মিঞা ও আমির মিঞাকে জোড়া খুনের অভিযোগে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

মৃত কিশোরের হিন্দু বাবা অতি নিরীহ রবিকান্ত সাহ বানহুরা গ্রামের ছোট ব্যবসায়ী। মেয়েটির পরিবার খাপ টোলা গ্রামে অল্প জমিতে চাষআবাদ করে। হিন্দু রবিকান্ত সাহ জানিয়েছেন, ছেলের খুনের খবর পেয়েও তিনি মুসলমানদের বিরুদ্ধে খোঁজ করার সাহস জুটিয়ে উঠতে পারেননি। এই এলাকাজুড়ে মুসলমানদের দাপট। মুসলমানরা হরহামেশাই হিন্দুদের মেয়ে বের করে নিয়ে যায়। মুসলমান বানায়। হিন্দুদের কিছুই করার থাকে না।

পুলিশ জানিয়েছে, এলাকায় হিন্দুদের মধ্যে ভয়ে কোন সাম্প্রদায়িক উত্তেজনা নেই, তবে মুসলমানরা যাতে আইন শৃঙ্খলা নিজ হাতে তুলে নিয়ে হিন্দুদের সমস্যা তৈরি না করে তা দেখতেই দুই গ্রামেই পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।
Rezaul Manik