বাংলাদেশ সীমা সংলগ্ন বসিরহাট মহকুমার বহু জায়গা জ্বলছে। হিন্দুদের উপর ও তাদের সম্পত্তির উপর ‘শান্তি-বারি’ ছেটানো হচ্ছে। মাগুড়িয়া গ্রামে সৌভিক সরকারের বাড়ি আগুন দেওয়া হয়েছে, তাকে আগেই গ্রেপ্তার করার পরও। অনিল সরকারের খাবার দোকান (হোটেল) ভাঙচুর ও লুট হয়ে গেছে। বসিরহাট শহরে কালীবাড়ি পাড়ার রথ আক্রান্ত হয়েছে। সেখানে ২জন পুলিশ আহত হয়েছেন। রামচন্দ্রপুরে হিন্দু শবদেহবাহী গাড়ির উপর আক্রমণ হয়েছে। https://www.facebook.com/sanjay.karmakar.980/videos/1455629264490217/

Reportedly বাদুড়িয়া থানায় আক্রমণ হয়েছে। থানার ৪ টি গাড়ি উন্মত্ত জনতা পুড়িয়ে দিয়েছে। কেওশা গ্রামে ৭-টি পুলিশের গাড়ি ভাঙচুর হয়েছে।  
Reportedly মগরা, গোপালপুর, গোলাবাড়ি, তেঁতুলিয়া, আরো অনেকস্থানে গন্ডগোল চলছে। শায়েস্তানগরে ‘শান্তির স্থান’ থেকে মাইকে হেঁকে লোক জড় করা হচ্ছে। 

পুলিশ বেচারা। কিছু করার ক্ষমতা তাদের নেই। আমাদের মহান উদার ধর্মনিরপেক্ষতা তাদের সব ক্ষমতা কেড়ে নিয়েছে।
হিন্দুদের কি করতে হবে তা আমার আর নতুন করে বলার দরকার নেই। হয় লড়, নাহলে পালাও। ভিডিও –
https://www.facebook.com/sanjay.karmakar.980/videos/1455552697831207/

সরকারী সম্পত্তি ধ্বংসের বিরুদ্ধে মমতা ব্যানার্জী যে আইন তৈরী করলেন, কোনো কাজে লাগছে সে আইন? ভবিষ্যতেও কি কাজে লাগবে? মুসলমানকে চিনতে মমতা ব্যানার্জীর আরো একটু বাকি আছে।

https://m.facebook.com/story.php?story_fbid=1444745282286587&id=100002533881766