অচেনা ইজরায়েল…………….!!!

Spread the love

অচেনা ইজরায়েলঃ-
আমাদের রাজ্যের দুটো জেলার সমান আয়তনের একটা দেশ…যার জনসংখ্যা ১ কোটিরও কম…যে দেশটাকে চারিদিক থেকে ঘিরে রয়েছে বা যে দেশটা আন্তর্জাতিক সীমানা শেয়ার করছে -ইজিপ্ট / সৌদি আরব / লেবানন / গাজা / সিরিয়ার মত কট্টরপন্থীমুসলিম দেশগুলোর সাথে ।দেশটার নাম ” ইজরায়েল “পৃথিবীর সবচেয়ে নতুন দেশ ও ছোটো দেশগুলোর মধ্যে অন্যতম ।কিন্তু তা সত্ত্বেও এদের বায়ুসেনা , পৃথিবীর অন্যতম ভয়ংকর বায়ুসেনা…যাদেরকে আমেরিকা / চীন / রাশিয়াও ভয় পায় ।এরা এদের প্রাচীন ভাষা হিব্রুকে একটাসময় সম্পূর্ণভাবে হারিয়ে ফেলে , আবারও শুধুমাত্র নিজেদের ইচ্ছাশক্তির বলে…বর্তমানে এদের প্রধান ভাষা অবশ্যই হিব্রু ।এরা আমাদের মতো নিজেদের মাতৃভাষা ভূলে হিয়ে ইংরেজি নিয়ে অত মাতামাতি করেনা ।ইজরায়েল সম্পর্কে একটা কথা সবসময় প্রচলিত -ইজরায়েল কখনওই নিজেদের শত্রুদের ক্ষমা করেনা , এদের সাথে শত্রুতা করা মানে মৃত্যু নিশ্চিত ।উদাহরণ – ১৯৭২ সালে মিউনিখ অলিম্পিকে ৩০ জন ইজরায়েলী অ্যাথলেটকে হত্যা করেছিল ফিলিপিন্সের জঙ্গি গোষ্ঠী…এরপর আগামী ২০ বছর ধরে দুনিয়ার বিভিন্ন কোণা থেকে খুঁজে খুঁজে সবকটাকে প্রানে মেড়েছিল ইজরায়েলী গোয়েন্দারা ।ওরা আমাদের মতো কড়াবার্তা দেয়না , ফ্যায়সলা করে প্রচণ্ড তাড়াতাড়ি ।এছাড়াও এপর্যন্ত কোনো যুদ্ধেই ইজরায়েল হার মানেনি…একবার ৭ টা মুসলিম দেশের সাথে একসাথে লড়াই করেও প্রত্যেককেশুইয়ে দিয়েছিল ইজরায়েলী ডিফেন্স….সবচেয়ে বড় কথা -সিরিয়ায় ISIS এর মতো সন্ত্রাসবাদী সংগঠন যে দেশেরপ্রাণভোমড়া…সেই সিরিয়াও ইজরায়েলের ভয়ে চুপ করে থাকে ।প্রত্যেকটাদিন গড়ে ১০ টা করে মিসাইল হামলা হয় ইজরায়েলের ওপর…কিন্তু একটাও মাটিতে পড়েনা…ওদের র্যাডার / ড্রোন এতটাই শক্তিশালী ।এবার সেই আমাদের হাতেও আসতে চলেছে , সৌজন্যে আমাদের প্রিয় প্রধানমন্ত্রী ।ডিফেন্স / টেকনোলোজি / সন্ত্রাসদমনে প্রায় ৭-৮ টা চুক্তি ভারত – ইজরায়েলের ভেতরসাক্ষরিত হয়েছে ।ইজরায়েলে নারী – পুরুষ প্রত্যেক নাগরিকের মিলিটারি ট্রেনিং করা ও কিছুদিনের জন্যে হলেও ডিফেন্সে চাকরী করাটা বাধ্যতামূলক…সেটা প্রধানমন্ত্রীর ছেলের ক্ষেত্রেও প্রযোজ্য ।এদের মূল ধর্ম হলো ইহুদী বা জিউস…ইজরায়েল হলো পৃথিবীর একমাত্রইহুদি রাষ্ট্র ।এদের নীতি হচ্ছে – এরা পৃথিবীর যেকোনো স্থানেই অবস্থিত জিউসদের নিজের দেশেরনাগরিক বলেই মনে করে ।একটা হাস্যকর তথ্য হলো -এরা রবিবার নাক পরিষ্কার করেনা ।ইজরায়েলের স্বাধীনতার পর অ্যালবার্ট আইনস্টাইনকে আমেরিকার তরফে ইজরায়েলের প্রথম প্রধানমন্ত্রী হবার জন্যে অনুরোধ করা হয়েছিল , কিন্তু আইনস্টাইন তা গ্রহণ করেনি ।আজ ভারতের স্বাধীনতার ৭০ বছরে এইপ্রথম কোনো ভারতীয় প্রধানমন্ত্রী ইজরায়েল সফরে গেলেন নরেন্দ্র মোদী রুপে ।এতদিন কেউ যায়নি তার কারনটা কি জানেন ?যেহেতু ইজরায়েল কট্টর মুসলিমবিরোধী দেশ তাই ভারত ইজরায়েলের সাথে এতদিন দূরত্ববজায় রেখেই চলতো , যাতে করে মুসলিম ভোটব্যাঙ্ক চটে না যায় !কিন্তু আজ ক্ষমতা হস্তান্তরের পর ভারতীয় বিদেশনীতিতেও চেঞ্জ এসেছে…আমাদের আজ সারাবিশ্বব্যাপীএকটা নতুন পেহেচান তৈরী হয়েছে…সবাই আজ আমাদের সমীহ করে চলছে,এমনকি চীনও ।রাশিয়া / আমেরিকা / ফ্রান্স / ইজরায়েল / জার্মানি / জাপান…দুনিয়ার প্রধান শক্তিধর দেশগুলোই আজ আমাদের মিত্রপক্ষ ।ইজরায়েলের ইতিহাসে গতকাল প্রথমবারের জন্যে তাদের পার্লামেন্টে উড়লো ভারতীয় তেরঙ্গা ঝাণ্ডা…এটা ভারতকে দেওয়া এক অভূতপূর্ব সন্মান….অনেকটা আরবের বুর্জ খালিফা / আইফেল টাওয়ারে রাতের বেলায় সেগুলোর লাইটিং এ ভারতীয় পতাকার রেঙে যাওয়ার মতোই সন্মানজনক ব্যাপার ।আজ ভারত – ইজরায়েলের বন্ধুত্তের সম্পর্কের জেরে পাকিস্তানের ঘুম উড়ে গেছে…সবচেয়ে বড়কথা…পাকিস্তানের সবচেয়ে বড় শত্রুভারত…ওইসলামি দেশগুলোর সবচেয়ে বড় শত্রু ইজরায়েল….আজ খুবই ঘনিষ্ঠ বন্ধু ।সবচেয়ে ভালো লাগলো – ইজরায়েলীপ্রধানমন্ত্রী বেঞ্জামিনের কথা শুনে….উনি বলেছেন – আমি ১০০ কোটি ভারতবাসীকে ভালোবাসি , মানেটা হচ্ছে ১২৫ কোটির ভেতর উনি ১০০ কোটি ভারতবাসীকে ভালোবাসেন…..!
#সিদ্ধার্থ_সরকার