গতকাল রানীগঞ্জ থেকে ট্রেনে পান্ডুয়া আসার সময় মেন লাইন লোকাল ধরার জন্য বর্ধমান ষ্টেশনে অপেক্ষা করার সময় দেখলাম হাজার হাজার পূন্যার্থী ষ্টেশনের নোংরা আবর্জনার মধ্যেই বসে আছে, যারা প্রত্যেকেই তারকেশ্বর শিব মন্দিরে জল ঢালতে যাচ্ছে ।
সরকারের তরফে কোনো সাহায্য নেই পূন্যার্থীদের জন্য, শুভেচ্ছা বার্তা দিয়ে কোনো রাজনৈতিক দল ফ্লেক্সও দেয়নি ।

পশ্চিমবঙ্গের বিভিন্ন রেলওয়ে ষ্টেশন, বাস ষ্টেশনে এমনই চিত্র ধরা পড়বে শ্রাবণ মাস জুড়ে ।

ওদিকে হজ যাত্রার জন্য কত ব্যবস্থা, হজ হাউস তৈরী করা হয়েছে, হাওড়া ষ্টেশনে কন্ট্রোল রুম খোলা হয়েছে রাজ্য সরকারের তরফ থেকে হজ যাত্রীদের সাহায্যের জন্য, রাস্তাঘাটে রাজনৈতিক দলগুলো হজ যাত্রীদের শুভেচ্ছা জানিয়ে ফ্লেক্স টাঙিয়েছে ।

হিন্দুদের দম নেই নিজেদের পূন্যার্থীদের সুবিধার জন্য অধিকার চাওয়ার মতো, পূন্যার্থীদের দেখলাম ট্রেনের মেঝেতে বসতে, কোনো হিন্দু পূন্যার্থীদের জন্য সিট ছাড়তে রাজী নয় দেখলাম নিজের চোখে দেখলাম ।

যদি কোনোদিন ক্ষমতা আসে সেদিন হিন্দু পূন্যার্থীদের জন্য শ্রাবন মাসে স্পেশাল ট্রেন চালাতে বাধ্য করব সরকারকে, ট্রেনের পূন্যার্থীদের বিনামূল্যে যাতায়াতের ব্যবস্থা করব, প্রতিটি ষ্টেশনে পূন্যার্থীদের বিনামূল্যে খাওয়া, পানীয় জল, চিকিৎসার ব্যবস্থা করব, সরকারি ভাবে সমস্ত সুবিধার ব্যবস্থা করা হবে পূন্যার্থীদের জন্য ।

কেউ সরকারি টাকাতে হজ যাত্রা করবে আর কেউ রেলওয়ে স্টেশনের নোংরার মধ্যেই শুয়ে থাকবে সেটা চলতে পারে না, পূন্যার্থীদের জন্যও শ্রাবণ মাসে সমস্ত সুবিধার ব্যাবস্থা করা হোক সরকারের তরফ থেকে ।