টিটু রায় আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছে। এদিকে টিটুর জন্য হিন্দু-বৌদ্ধ-খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদ, পূজা উদযাপন পরিষদ, ঘাতক-দালাল নির্মূল কমিটির ঠিক করে দেয়া সাত সদস্যের আইনজীবী দল সকাল থেকে অপেক্ষা করে সারাদিন চেষ্টা করেও ওকালতনামায় টিটুর সই নিতে পারেননি। অথচ টিটু সাড়ে ৫ ঘন্টা আদালতে কঠোর পুলিশি প্রহরায় ছিলো। ওকালতনামায় সই না করাতে পেরে টিটুর জন্য আদালতে কোন আইনি কার্যক্রমে তার আইনজীবীরা অংশগ্রহণ করতে পারেননি। টিটুর আইনজীবী নরেশ চন্দ্র সরকার বলেছেন, টিটুকে নিয়ে পুলিশ অতিরিক্ত গোপনীয়তা করে তার সঙ্গে তার আইনজীবীদের দেখা করাই বন্ধ করে দিয়েছে। এদিকে যথা সময়ে টিটুকে দিয়ে আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি নেয়া হয়ে গেছে।

আদালতে টিটু স্বীকার করবে সে-ই তার প্রচন্ড ইসলাম বিদ্বেষ আর ঘৃণার কারণেই মুসলমানদের নবীকে নিয়ে পোস্ট দিয়েছিলো। আসলে স্বীকারোক্তি আদায়কারীদের চাহিদা মাফিক এক্ষেত্রে টিটুর স্বীকারোক্তিটা কি হতে পারে তা নির্ভর করছে। কর্তা যদি চান টিটুর পক্ষে কোন আইনজীবী আদালতে কাজ করতে পারবে না- তাহলে সেটাই হবে। এদেশে রাজাকার গণহত্যাকারী যুদ্ধাপরাধীরা আপিল করেছে রিভিউ করেছে, আর একজন টিটু রায় প্রথম তার জন্য কোন আইনজীবী পায়নি। কোন আইনজীবী তার জন্য দাঁড়াতে রাজি হয়নি। পরে সাতজন আইনজীবী দাঁড়ালেও তারা ওকালাতনামায় টিটুর সই-ই নিতে পারেনি!

দেশটা এখন কারা চালাচ্ছে এ থেকেই স্পষ্ট হয়। তবু কিছু দালাল দালালী করেই যাবে!…