Courtesy অনির্বাণ আরিফ

আমেরিকা চাঁদে গেছে। রাশিয়া চাঁদে গেছে। ভারত খুব কাছাকাছি চলে গেছে। কিন্তু আপনি বসে বসে ভাবছেন এসব কিছু  আপনার ধর্মগ্রন্থেই আছে। সুতরাং আপনার আর যাওয়ার দরকার কী?

আমেরিকা বেদ্বীন, রাশিয়া ধর্মহীন, ভারত মালু। এরা সবাই এক একটা অভিশপ্ত জাতি, আপনার ভাষায় চির জাহান্নামী। তাই আপনি মানবসভ্যতার কোন আবিস্কার, উদ্ভাবন, কল্যাণ নিয়ে ভাবছেন না। আপনি ভাবছেন কে জাহান্নামে যাবে আর কে জান্নাতে যাবে কেবল সেটা নিয়ে। আর পারলে যে কোন সাইন্টিস্ট, ফিলোসফার কিংবা পাইওনিয়ার ব্যক্তিদের কোট করে তাদের বিরুদ্ধে মিথ্যা প্রোপাগাণ্ডা ছড়ান। এক্ষেত্রে আপনার দেশীয় মোটিভেশানাল স্পীকার  সাঈদী, তারেক মুনওয়ার, আজহারী আর বিদেশী স্পীকার জাকের নায়েক।

আপনি এবং আপনার মোটিভিস্টদের চিন্তামতে অমুসলিম  সাইন্টিস্টরা সব কাফের। স্যেকুলার ফিলোসফাররা সব বেদ্বীন। এথিস্ট রাইটাররা সব জাহান্নামী। উদার, শান্তিপ্রিয়, স্যেকুলাররা সব ক্রিমিনাল। অথচ উগ্র, অসভ্য, বর্বর, সাম্প্রদায়িক এবং সহিংসতাকারীরা সবাই ধার্মিক, জান্নাতি হুর পাবে।

আমরাই শ্রেষ্ঠ জাতি। আমরাই সৃষ্টিকর্তার মনোনীত জাতি। আমাদের ধর্মগ্রন্থই বিজ্ঞান। আমাদের আর কোন কিছুই প্রয়োজন নেই। এমন অথর্ব, অযৌক্তিক, বাগাড়ম্বর এবং ঔদ্ধত্যপূর্ণ আচরনের জন্য ই আপনি পিছনে চলে গেছেন। জ্ঞান – বিজ্ঞান থেকে এভাবেই আপনি ছিটকে পড়ছেন।

পৃথিবী আপনাকে পেছনে ফেলে অনেক দূর চলে গেছে। অথচ আপনার মোটিভেশানাল স্পীকাররা আপনাকে শ্রেষ্ঠত্বের, আভিজাত্যের, অহমিকার, হিংসার এবং বিভাজনের মধুমাখা চাকু দিয়ে আপনার অন্তর কেটে কেটে আপনাকে মূর্খ, কূপমন্ডুক, অন্ধ এবং অক্ষম করে তুলছে। আপনার চিন্তার সীমারেখাকে একটি বৃত্তে বেঁধে দিয়েছে। আপনার উদার আকাশকে বিশ্বাসের বিষাক্ত ধোঁয়া দ্বারা ঢেকে দিয়েছে। ফলস্বরূপ আপনি বিশ্বাসকে ভিত্তি করে চলেন, বিবেক দিয়ে নয়। সেজন্য ই আপনার কাছে আগে বিশ্বাস, পরে মানুষ।