Thursday, July 29, 2021
Home Bangla Blog ৫৭ ধারাকে চকচকে ধারালো করা হচ্ছে!!!

৫৭ ধারাকে চকচকে ধারালো করা হচ্ছে!!!

মাইকে ঘোষণা দিয়ে সংখ্যালঘুদের উপর হামলা চালালে এদেশে তার কোন বিচার হয় না। কিন্তু সেটা থামাতে ফেইসবুকে পোস্ট লিখলে পোস্টদাতাকেই ‘সাম্প্রদায়িক উশকানির’ অভিযোগ ৫৭ ধারায় মামলা হয়। দেশে দেশে ব্লাসফেমি পাস করাই হয় এ জন্য। এটা মুষলমানদের দেশ। এখানে সংখ্যাগরিষ্ঠরা মসজিদের মাইকে ঘোষণা দিয়ে সমতলে হিন্দু-বৌদ্ধের উপর, পাহাড়ে আদিবাসীদের উপর হামলা করবে, কিন্তু এ জন্য হামলার উশকানিদাতাদের কিছুই হবে না। উল্টো গণভবনে চায়ের দাওয়াত পাবে তাদের কেউ কেউ। আমাদের সবার শ্রদ্ধেয় লেখক ইমতিয়াজ মাহমুদকে (Imtiaz Mahmood)  ৫৭ ধারায় মামলা দেয়া হয়েছে কারণ তিনি পাহাড়ে সেটেলার বাঙালী মুষলমানদের হামলা লুটপাটের বিষয়টি সবার নজরে এনেছিলেন। বড় ধরণের ক্ষতি আর বিপর্যয় থেকে রেহাই পাওয়া উদ্দেশ্যেই তিনি সবাইকে সজাগ করতে চেয়েছেন। অতিতে বড় ধরণের সাম্প্রদায়িক হামলা আক্রমণের চক্রান্তকে এক্টিভিস্টরা লেখালেখি করে আগেভাবে সবাইকে সজাগ করে থামিয়ে দিয়েছে। এটাই ৫৭ ধারার জন্মদাতাদের গাত্রদাহের অন্যতম কারণ। পাহাড়ে জাতিগত বিদ্বেষ নিপীড়নের বিরুদ্ধে যারা দাঁড়াচ্ছে তারা সবাই ৫৭ ধারার চোখে তাই অপরাধী। যারা সারাদেশে ধর্মীয় সম্প্রদায়িকতার বিরুদ্ধে দাঁড়াচ্ছে, সরকারী দলের হিন্দু সম্পত্তি দখলের বিরুদ্ধে কথা বলছে- তারা সকলেই ৫৭ ধারার চোখে ধর্মীয় অসহিষ্ণুতা ছড়াচ্ছে…।

৫৭ ধারা কোন ফ্যাক্ট নয়। ফ্যাক্ট হচ্ছে ব্লাসফেমি মানসিকতার। বঙ্গবন্ধুর কথিত ছবি বিকৃতির অভিযোগে ৫৭ ধারাতে মামলা হয়নি শুনেছি। তবু একজন ইউএনও গ্রেফতার হয়েছেন। বঙ্গবন্ধু ছবি ঠিক মত আঁকতে না পারলে ভবিষ্যতে কারুর ফাঁসিও হয়ে যেতে পারে! কারণ সবাই বলছে ইউএনও সাহেব একটি শিশুর আঁকা বঙ্গবন্ধুর যে ছবিটি নিমন্ত্রণপত্রে ছেপেছেন সেখানে বঙ্গবন্ধুকে ‘বিকৃত’ করা হয়নি। তাহলে কি সত্যিই ছবিটাতে ‘বিকৃতি’ বলতে কিছু পাওয়া যেতো তখন ইউএনও সাহেবকে জেলের ঘানি টানতে হতো? বঙ্গবন্ধুর ছবি যেহেতু মারাত্মক একটি বিষয় তাই শিশুদের এটি আঁকতে বারণ করাই শ্রেয়। আরো জরুরী বিষয় হচ্ছে- দ্রুত বঙ্গবন্ধুর ছবি আঁকার উপর আওয়ামী লীগের নিজস্ব শরীয়ত অনুযায়ী বিধিবিধান ঠিক করে দেয়া শিল্পীদের জন্য। নইলে ছবি এঁকে জেলে যাবার ঘটনা সামনে ঘটতে শুরু করবে এবং সেটা ৫৭ ধারাতেই…।

৫৭ ধারাকে চকচকে ধারালো করেছেন শেখ হাসিনা। আইনের এই ধারটি দিয়ে এখন ইসলাম, বঙ্গবন্ধু, শেখ হাসিনাকে রক্ষা করা হচ্ছে। ব্লাসফেমি চিরকালই সংখ্যাগরিষ্ঠদের কাছে জনপ্রিয় হয়ে উঠে। কারণ এটি দ্বারা তারা নাস্তিক, ভিন্নমতালম্বী, ধর্মীয় ও জাতিগত সংখ্যালঘু, রাজনৈতিক সংখ্যালঘুদের সাইজ করতে ব্যবহার করে থাকে। আওয়ামী লীগ যখন রাজনৈতিকভাবে সংখ্যালঘু হয়ে যাবে তখন ৫৭ ধারার এই ধারালো অংশটি দিয়েই তাদের উপর সবচেয়ে ভাল করে ব্যবহার করা হবে।

লেখক, পাঠক

RELATED ARTICLES

আফগানিস্তান: আমেরিকা চিরকাল আফগানদের পাহারা দিবে কেন?

আফগানিস্তান: আমেরিকা চিরকাল আফগানদের পাহারা দিবে কেন? আমেরিকা কি আফগানদের বিপদে ফেলে চলে গেছে? 8 ই মে আফগানিস্তানের একটি স্কুলের বাইরে বোমা বিস্ফোরণের পরেও...

বৈদিক সভ্যতা! মানব সভ্যতার অহংকার।

বৈদিক সভ্যতা! মানব সভ্যতার অহংকার। আজকের দিনে কলেজ বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়ুয়া হিন্দু তরুন তরুনীরা তাদের নিজ ধর্ম, কৃষ্টি ও সংস্কৃতির বিষয়ে আলোচনা করার ক্ষেত্রে চরম...

সতীদাহ কি হিন্দু ধর্মের প্রথা, বাল্য বিবাহ ও রাত্রীকালীন বিবাহের উৎপত্তির কারণ কি?

সতীদাহ কি হিন্দু ধর্মের প্রথা ? এবং বাল্য বিবাহ ও রাত্রীকালীন বিবাহের উৎপত্তির কারণ কি? ধর্মীয় বিষয় নিয়ে চুলকানো মুসলমানদের স্বভাব| এই চুলকাতে গিয়ে মুসলমানরা নানা...

Most Popular

বৈদিক সভ্যতা! মানব সভ্যতার অহংকার।

বৈদিক সভ্যতা! মানব সভ্যতার অহংকার। আজকের দিনে কলেজ বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়ুয়া হিন্দু তরুন তরুনীরা তাদের নিজ ধর্ম, কৃষ্টি ও সংস্কৃতির বিষয়ে আলোচনা করার ক্ষেত্রে চরম...

বেদে স্পষ্ট করে গো হত্যা নিষেধ আছে-দুর্মর

বেদে স্পষ্ট করে গো হত্যা নিষেধ আছে। অপপ্রচার এর জবাব গো হত্যা এরজবাব। অনেক বিধর্মী এবং অপপ্রচার কারী রা বেদে গো হত্যা এর কথা...

পুষ্যমিত্র শুঙ্গ: ভারতে বৈদিক ধর্মের পুনঃপ্রতিষ্ঠাতা। বৌদ্ধধর্মের শাসন সমাপ্তি করেছিল মৌর্য সাম্রাজ্যের সাথে!

পুষ্যমিত্র শুঙ্গ: ভারতে বৈদিক ধর্মের পুনঃপ্রতিষ্ঠাতা। বৌদ্ধধর্মের শাসন সমাপ্তি করেছিল মৌর্য সাম্রাজ্যের সাথে! ভারতবর্ষে অনেক মহান রাজা রয়েছেন। হিন্দু ধর্ম গ্রন্থ এবং ঐতিহাসিক সাহিত্য...

অনাদি হিন্দু জাতি কী? হিন্দু জতি সুদূর অতীত থেকেই অস্তিত্বশীল, কখনও কৃত্রিম সত্তা ছিল না।

অনাদি হিন্দু জাতি কী? হিন্দু জতি সুদূর অতীত থেকেই অস্তিত্বশীল, কখনও কৃত্রিম সত্তা ছিল না। আজকাল হিন্দু ও জাতীয়তাবাদের মতো শব্দগুলি শোনা যাচ্ছে এবং...

ভারতীয় সভ্যতার এমন শক্তি আছে যা ভােগবাদী দুনিয়াকে সঠিক পথের সন্ধান দিতে পারে।

ভারতীয় সভ্যতার এমন শক্তি আছে যা ভােগবাদী দুনিয়াকে সঠিক পথের সন্ধান দিতে পারে। প্রথমদিকে নানাভাবে অতিরিক্ত চাহিদা নিয়ন্ত্রণে বাধ্য করতে হবে। প্রয়ােজনে শক্তি প্রয়ােগ...

আমাদের সুপ্রাচীন সভ্যতার গৌরবময় মহান ঐতিহ্য জানতে হবে, সময় এসেছে ভুল সংশােধনের।

সুপ্রাচীন সভ্যতা: আমাদের সুপ্রাচীন সভ্যতার গৌরবময় মহান ঐতিহ্য জানতে হবে, সময় এসেছে ভুল সংশােধনের। যে কেউ খোলা চোখে তাকালে আধুনিক বিশ্বের চতুর্দিকে নানা ধরনের পরস্পর...

আর্যরা বহিরাগত নয়: আর্য দ্রাবিড় এক জনজাতি, ‘আর্যরা বহিরাগত’ এই তত্ত্বের উদ্ভাবনের কারণ কি?

আর্যরা বহিরাগত নয়: আর্য দ্রাবিড় এক জনজাতি, 'আর্যরা বহিরাগত' এই তত্ত্বের উদ্ভাবনের কারণ? আর্যরা বহিরাগত নয়: আর্য দ্রাবিড় এক জনজাতি, "আর্যরা বহিরাগত আক্রমণকারী- একটি...
%d bloggers like this: