অামি ধর্ম বা জাত নিয়ে হিংসা হানাহানি,রেশারেশি পছন্দ করি না। হিন্দুকেও অামি এগুলো করতে বলি না। শুধু হিন্দুকে সচেতন হতে বলি। কারন অামি যতটুকু জানি বা বুঝি তাতে এই সত্য উপলব্ধি করতে পেরেছি যে,মুসলিমগন কোনদিনই অমুসলিমদের অধীনে থাকতে চায় না এবং অমুসলিমদেরকে সহ্য করে না। মুসলিমগন যতদিন পর্যন্ত সংখ্যালঘু ও দুর্বল থাকে ততদিন ওরা ভাল মানুষ ও সেকুলার হয়ে থাকে। অার অাস্তে অাস্তে নিজেদের বংশ,শক্তি ও ক্ষমতা অায়ত্ব করতে থাকে। ওরা সুযোগে পেলে এই জিনিসগুলো খুব তাড়াতাড়ি করে। যার সত্যতা যারা বাস্বব জ্ঞান সম্পূর্ন ও ইতিহাসকে জানেন তারা ভাল বুঝবেন। বেশী দুরে যাব না। বিংশ শতকের কথাই বলি। মোগল শাষন খর্ব হওয়াতে মুসলিগন ভারতবর্ষে সাময়িক ভাবে দুর্বল হয়ে পড়ে। ইংরেজ অামলে মুসলিমগন মহা সেকুলার হয়। হিন্দুদের সাথে তাল মিলিয়ে,ইংরেজ ও হিন্দুদের বশ্যতা মেনে সমাজে বাস করতে থাকে। সেই সাথে জনসংখ্যা বৃদ্ধি ও জ্ঞান অর্জন করতে থাকে।ইংরেজদেকে তাড়াতে এরা স্বদেশী অান্দোলনে হিন্দুদের সাথে তাল মেলায়। বোকা হিন্দুদেরকে ম্যানেজ করে নিজেদের শক্তি,ইসলামিক স্থাপত্য ও ইসলামিক ইতিহাস ও কালচার ধরে রাখে। ইংরেজদের বিদায়ের অল্প সময়ের মধ্যেই ভারত ভাগ করতে ও হিন্দুর বশ্যতা মেনে না নিতে দেশ ব্যাপি দাঙ্গা শুরু করে দেয়। বেকুববাদী হিন্দু নেতাদের (গান্ধী,নেহেরু) প্ররোচনায় ও প্রশ্রয়ে মুসলিগন মহা হত্যাযজ্ঞ শুরু করে এবং দেশ ভাগ করতে,মুসলিম অধ্যষিত রাজ্যগুলো তাদের ছেড়ে দিতে হিন্দুদেরকে চাপ দিতে থাকে। লাখ লাখ নিরীহ হিন্দুকে অমানুষের মত হত্যা করে।হিন্দু নারী,শিশু,বৃদ্ধ,বৃদ্ধা কেউই রেহাই পায়নি।হিন্দুর সহায় সম্বল সব হারিয়ে হিন্দু হয়েছে উদ্বাস্ত। জীবন বাঁচাতে রাজ্য থেকে রাজ্যে ছুটে বেড়িয়েছে বেকুব সেকুলার হিন্দুরা। সে ইতিহাস সকলেরই জানা। তা নিয়ে অার কথা বাড়াব না। এবারে অাসুন দেশ ভাগের পরে ১৯৫০ সালের কথায়। তখন ঢাকা শহরে ও ঢাকা জেলার অাশে পাশে হিন্দুরা বেশ স্বচ্ছলতার সহিত বাস করতেন। কিন্তু হিন্দুকে তাড়াতে মুসলিগন শুরু করল গুজোব। কোলতায় হিন্দুরা নাকি মুসলিম নিধন করছে তা মিডিয়াতে প্রচার করে দাঙ্গা শুরু করে লাখ লাখ হিন্দুর সব কেড়ে নিয়ে হত্যা করে দেশ ছাড়া করেছে। এর পরে পূর্ব পাকিস্তানের স্বাধীনতার সময়ে বেছে বেছে হিন্দু নিধন করল মুসলিগন। ১৯৭১ সালের পরে যা কিছু হিন্দু ছিল তা শেষ করতে ১৯৯০ তে বাবরী মসজিদ ইস্যুতে নিরীহ বাংলাদেশী হিন্দুদের শেষ করল। ২০০১ সালে নৌকায় ভোট দেবার অযুহাতে অাবার দেশ ব্যাপি হিন্দু বিতাড়ন হল। ২০১৬ তে অাবার ব্রাহ্মন বাড়ীয়ায়,গাইবান্ধায় হিন্দু বিতাড়ন। এছাড়া সারা বছর ধরে হিন্দু তাড়াতে বাংলাদেশে চলে হিন্দু নির্যাতন। বর্তামানে পশ্চিম বাংলায় হিন্দুরা মুসসলিম পেলে বিপদে পড়ছে। সেকুলারগিরি দেখিয়ে মুসলিমদের তেল ও তোয়াজ করে ওদের সংখ্যা বাড়িয়ে চলছে। মুসলিমগন কিছুটা সুবিধা পেয়েই বেকুব হিন্দুদের তাড়াতে এখনই দাঙ্গা শুরু করে দিয়েছে। একদিন পশ্চিমবাংলা থেকেও হিন্দুদের তাড়াবে ওরা। এতো বাস্তবতা ও এতো প্রমান,এতো ইতিহাসের পরেও কি জ্ঞানে হিন্দুরা সেকুলার হয়,তা অামার মত মানুষের মাথায় ঠোকে না। কি করে হিন্দুরা হিন্দুস্থানে মুসলিম তোষনের রাজনীতি করে,তা অামি বুঝি না। হিন্দুর জ্ঞান কি অার কোনদিনই হবে না? (সংক্ষেপ করলাম)